করোনা ভাইরাস নিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের খবর

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

মধ্যপ্রাচ্যের সবকটি দেশই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্য সবচেয়ে বেশী আক্রান্ত ও মৃত্যু হয়েছে ইরানে। এর পরেই মৃত্যুর সংখ্যা দিক থেকে রয়েছে ইরাক ও আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে রয়েছে ইসরাইল। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলিতে লকডাউনের পাশাপাশি চলছে কারফিউ। সরকারিভাবে বন্ধ রয়েছে অফিস আদালত। নিন্মে দেশগুলিতে চলমান অবস্থা দেওয়া হলঃ

কুয়েতঃ মধ্যপ্রাচ্যের এই ছোট দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ২৮৯ জন। দেশটিতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত কেউ মৃত্যুবরন করেনি। ইতিমধ্য সুস্থ্য হয়েছে ৮০ জন, ২০৯ জন চিকিৎসাধীন আছেন ও এর মধ্য সংকটজনক অবস্থায় আছেন ১৩ জন। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় দেশটিতে চলছে বিকাল ৫টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত কারফিউ। কারফিউ থাকাকালীন সময়ে আইন শৃংঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সাইরেন বাজিয়ে টহল দিতে দেখা যায় ও এই সময় কারফিউ অমান্য করে কেউ রাস্তায় বের হলে গ্রেপ্তার করা হয়। আইন অমান্যকারীদের জন্য রয়েছে ৩ বছরের সাঁজা ও ১০ হাজার দিনার জরিমানা।

সৌদি আরবঃ সৌদি আরবে মোট ১৫৬৩ জন আক্রান্ত হয়েছে, এর মধ্য মৃত্যুবরন করেছে ১০ জন, সুস্থ্য হয়েছে ১৬৫ জন ও সংকটজনক অবস্থায় আছে ৩১ জন। এই দেশটিতেও করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় লকডাউনের পাশাপাশি কারফিউ চলছে সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত। জনসাধারনের চলাচলে কড়াকড়ি আরোপ করায় এখনো পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।

ইসরাইলঃ ইরানের পর মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলির মধ্য সবচেয়ে বেশী আক্রান্ত হয়েছে এই দেশটিতে। আক্রান্তের সংখ্যা ৫৫৯১ ও ইতিমধ্য মৃত্যু হয়েছে ২১ জনের, ২২৬ জন সুস্থ্য হয়েছে ও ৯৭ জন সংকটজনক অবস্থায় আছে। দেশটিতেও লকডাউন চলছে। প্রতি ১০ লক্ষে আক্রান্তের সংখ্যা ৬৪৬ জন।

ইরানঃ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলির মধ্য ইরানেই প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। দেশটিতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমনে ভয়াবহ রূপ ধারন করে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৪৬০৫ জন, ইতিমধ্য মৃত্যুবরন করেছে ২৮৯৮ জন , সংকটজনক অবস্থায় আছে ৩৭০৩ জন ও সুস্থ্য হয়েছে ১৪৬৫৬ জন। দেশটির উচ্চ পদস্থ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তাও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। দেশটির স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে।

কাতারঃ সৌদি আরবেই পাশেই এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৭৮১ জন ও এর মধ্য মৃত্যুবরন করেছে ২ জন। ৬২ জন সুস্থ হয়েছে ও ৬ জন সংকটজনক অবস্থায় আছে। প্রতি ১০ লক্ষে আক্রান্তের সংখ্যা ২৭১ জন।

ইরাকঃ যুদ্ধবিধ্বস্ত এই দেশটিতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৫০ জন ও এই পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৬৯৪ জন। এর মধ্য সুস্থ্য হয়েছে ১৭০ জন ও সংকটজনক অবস্থায় আছে ১৭ জন। ইরান থেকে আসা ইরাকি নাগরিকদের মাধ্যমেই দেশটিতে করোনা ভাইরাসের আগমন ঘটেছে।

আমিরাতঃ দেশটিতে মোট ৬৬৪ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ও এর মধ্য ৬ জন মৃত্যুবরন করেছে। সুস্থ্য হয়েছে ৬১ জন ও ২ জনের প্রানহানি ঘটেছে। প্রতি ১০ লক্ষে ৬৭ জন আক্রান্ত হয়েছে।

বাহরাইনঃ বাহরাইনে মোট ৫৭৬ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ও এর মধ্য মৃত্যুবরন করেছে ৪ জন। ৩১৬ জন সুস্থ্য হয়েছে ও ২ জন সংকটজনক অবস্থায় আছে। দেশটিতে প্রতি ১০ লক্ষে ৩৩৩ জন আক্রান্ত হয়েছে।

ওমানঃ এই দেশটিতে ২১০ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ও এর মধ্য ১ জন মৃত্যুবরন করেছে। ইতিমধ্য ৩৪ জন সুস্থ্য হয়েছে ও সংকটজনক অবস্থায় আছে ৩ জন। দেশটিতে প্রতি ১০ লক্ষে ৪১ জন আক্রান্ত হয়েছে।

জর্ডানঃ এই দেশে ২৭৪ জন আক্রান্ত হয়েছে ও ইতিমধ্য ৫ জন মৃত্যুবরন করেছে। এর মধ্য ৩০ জন সুস্থ্য হয়েছে ও ৫ জন ক্রিটিকেল অবস্থায় আছে। প্রতি ১০ লক্ষে ২৭ জন আক্রান্ত হয়েছে।

সিরিয়াঃ যুদ্ধবিধ্বস্ত এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১০ জন ও মৃত্যুবরন করেছে ২ জন। দেশটিতে প্রতি ১০ লক্ষে ০.৬ জন আক্রান্ত হয়েছে। এই দেশটির সাথে পাশ্ববর্তী দেশ সমূহের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন থাকায় ও বিদেশীদের আগমন না থাকায় দেশটির আক্রান্তের সংখ্যা তুলনামূলক কম।

লেবাননঃ এখানে মোট ৪৭৯ জন আক্রান্ত হয়েছে ও এর মধ্য মৃত্যুবরন করেছে ১২ জন। সুস্থ্য হয়েছে ৩৭ জন ও সংকটজনক অবস্থায় আছে ৭ জন। দেশটিতে প্রতি ১০ লক্ষে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৬০ জন।

ফিলিস্তিনঃ এখানে আক্রান্ত হয়েছে ১৩৪ জন ও মৃত্যুবরন করেছে ১ জন। ১৮ সুস্থ্য হয়েছে ও প্রতি ১০ লক্ষে আক্রান্ত হয়েছে ২৬ জন।

০১-০৪-২০২০ ( বাংলাদেশ সময় বিকাল ৫টা পর্যন্ত)

গত ২৪ ঘন্টায় ১ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ও ৪ জন সুস্থ্য হয়েছে

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

গত ২৪ ঘন্টায় ১ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ও এই সময়ে সুস্থ্য হয়েছে ৪ জন। ফলে মোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৪৯ জনে। মোট সুস্থ্য হয়েছেন ১৯ জন ও মৃত্যুবরন অরেছেন ৫ জন ও ২৫ জন চিকিৎসাধীন আছেন। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ২০ বছরের এক তরুনী, নতুন করে সুস্থ্য হওয়া ৪ জনের মধ্য ১ জন ডাক্তার ও ১ জন নার্সও রয়েছেন। আজ মহাখালীতে আইইডিসিআর কার্যালয়ে সংস্থাটির পরিচালক মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানিয়েছেন।

বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৭২৩৭১৬ জন ও এ পর্যন্ত মৃত্যুবরন করেছে ৩৪০০০ জন। এই সময়ের মধ্য সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ১৫১৮২৪ জন ও চিকিৎসাধীন আছেন ৫৩৭৮৯২ জন। আক্রান্তের দিক থেকে প্রথম স্থানে আছে যুক্তরাষ্ট্র, দেশটিতে এই পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১৪২৭৩৫ জন ও এর মধ্য মৃত্যুবরন করেছে ২৪৮৯ জন। মৃত্যুর সংখ্যার দিক থেকে ইতালী রয়েছে প্রথম স্থানে, দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে ৯৭৬৮৯ জন ও মৃত্যুবরন করেছে ১০৭৭৯ জন। মৃত্যুর দিক থেকে ৩য় অবস্থানে আছে স্পেন, এখানে মোট আক্রান্ত হয়েছে ৮০১১০ জন ও এর মধ্য মৃত্যুবরন করেছে ৬৮০৩ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় দেশে নতুন করে আর কেউ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়নি

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

গত ২৪ ঘন্টায় দেশে নতুন কোন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়নি। ৪২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনেরও করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। সুখবর এরই মধ্য আরও ৪ জন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছে। ফলে মোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা আগের মত ৪৮ই রয়ে গেল। নতুন করে আর কেউ মৃত্যবরন করেনি। মোট সুস্থ্য হয়েছেন ১৫ জন ও চিকিৎসাধীন আছেন ২৪ জন। আইইডিসিআর এর পরিচালক মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা আজ এক ভার্‌চ্যুয়াল ব্রিফিয়ে এই তথ্য জানিয়েছেন। তিনি আরো জানিয়েছেন আইইডিসিআর এই পর্যন্ত ১০৬৮ জনের করোনা ভাইরাসের আছে কি না তা পরীক্ষা করেছেন। এর মধ্য মোট ৪৮ জনের মধ্য করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৫৯৭৪৫৮ জন।এর মধ্য মৃত্যুবরন করেছে ২৭৩৭০ জন, সুস্থ্য হয়েছে ১৩৩৩৭৩ জন ও সংকটজনক অবস্থায় আছে ২৩৫৫৯ জন। আক্রান্তের দিক থেকে সবচেয়ে বেশী হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে ১০৪২৫৬ জন ও দেশটিতে মৃত্যুবরন করেছে ১৭০৪ জন। আক্রান্তের দিক থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পরেই রয়েছে ইতালী। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৮৬৪৯৮ জন ও মৃত্যু হয়েছে ৯১৩৪ জনের। আক্রান্তের দিক থেকে এর পরেই রয়েছে যথাক্রমে চীন, স্পেন জার্মানি, ফ্রান্স, ইরান ও ইউকে। বিশ্বের ১৯৯ দেশ ও টেরিটরী করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়েছে। ১২টা ৫০ মিনিট, শনিবার (বাংলাদেশ সময়)

করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে চীনকে ছাড়িয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে যুক্তরাষ্ট্র এখন শীর্ষে রয়েছে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে ৮৫৫৯৪ জন ও ইতিমধ্যে মৃত্যুবরন করেছে ১৩০০ জনের ওপরে। এর পরেই রয়েছে চীনের অবস্থান যেখানে আক্রান্ত হয়েছে ৮১৩৪০ জন ও মৃত্যবরন করেছে ৩২৯২ জন। আর তৃতীয় স্থানে আছে ইতালী যেখানে আক্রান্ত হয়েছে ৮০৫৮৯ জন ও মৃতের সংখ্যা ৮২১৫ জন। এর পরেই রয়েছে যথাক্রমে স্পেন, জার্মানি, ইরান ও ফ্রাঞ্চ। সংক্রমনের যে ট্রেন্ড তাতে দেখা যায় আর কয়েক ঘন্টার মধ্যই চীনকে পিছনে ফেলে আক্রান্তের দিক থেকে ২য় স্থানে চলে যাবে ইতালী। আর এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশী মৃত্যুবরন করেছে ইতালীতেই।

সারাবিশ্বে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৩২২৫৭ জনে, মৃত্যুবরন করেছে ২৪০৮৯ জন ও এর মধ্য সুস্থ্য হয়েছে ১২৪৩৩২ জন। দেশে মোট ৪৪ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত। এর মধ্য মৃত্যু হয়েছে ৫ জনের, ১১ জন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছে ও ২৮ জন চিকিৎসাধীন আছেন। এদিকে করোনা ভাইরাস সংক্রমনের পরিস্থিতিতে রাজধানীর দুই সিটির মেয়রই রাজধানীকে পরিচ্ছন্ন রাখতে সিটি কর্পোরেশনের গাড়ি দিয়ে কীটনাশক স্প্রে করছেন। এটি চলমান থাকবে।

গত ২৪ ঘন্টায় দেশে নতুন করে আর কোন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়নি

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

এই সময়ে ১ জনের মৃত্যু হয়েছে ও ২ জন সুস্থ্য হয়েছে। এই নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ জনে ও সুস্থ্য হয়েছেন ৭ জন। আর মোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯ জনই রয়েছে। এর মধ্য ২৭ জন এখন চিকিৎসাধীন আছেন। এই তথ্য জানিয়েছেন আইইডিসিআরের পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। তিনি আরও জানিয়েছেন আইসোলেশনে আছেন ৪৭ জন ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৪৭ জন। এদিকে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করতে বেসামরিক প্রশাসনের সাথে সেনাবাহিনী মাঠে নেমেছেন। দেশের বিভিন্ন স্থানে সেনাবাহিনী টহল দিতে দেখা গেছে।

সারাবিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪২৪১১৪ জন, এর মধ্য মৃত্যুবরন করেছে ১৮৯৩১ জন, চিকিৎসাধীন আছেন ২৯৫৯৯৩ জন ও ১০৯১৯০ জন সুস্থ্য হয়েছেন। সৌদি আরবে প্রথম ১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। ইতালীতে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৬৮২০ জন ও আক্রান্ত হয়েছে ৬৯১৭৬ জন। যুক্তরাষ্ট্রে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৭৮৪ জন ও মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫৪৯৩৫ জন। অপরদিকে স্পেনে মৃত্যু হয়েছে ২৯৯১ জনের ও আক্রান্তের সংখ্যা ৪২০৫৮ জন। ইরানে মৃত্যুবরন করেছে ১৯৩৪ জন ও আক্রান্ত হয়েছে ২৪৮১১ জন।

করোনা ভাইরাস আক্রান্ত নিয়ে আশার বাণী

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরব ও কুয়েতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে যথাক্রমে ৫১১ জন ও ১৮৯ জন। ইতিমধ্য সৌদি আরবে সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৭ জন। আর বাকিরা চিকিৎসাধীন আছেন। অপরদিকে কুয়েতে সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৩০ ও বাকিরা চিকিৎসাধীন আছেন। এদিকে মধ্যপ্রাচ্যের আরেক দেশ কাতারে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৯৪ জন। এর মধ্য সুস্থ্য হয়েছেন ৩৩ জন। এই পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায় আল্লাহর রহমতে দেশ ৩টিতে এখনো কোন মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি। এই ৩ দেশের সরকার আক্রান্তদের যথাযথ চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন কিংবা সঠিক চিকিৎসা হচ্ছে বলেই মৃত্যুর হার এখন পর্যন্ত শূন্য। অপরদিকে গত ২৪ ঘন্টায় সৌদি আরবে নতুন কোন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়নি। একইভাবে কাতারেও নতুন কোন রোগী শনাক্ত হয়নি গত ২৪ ঘন্টায়। তবে গত ২৪ ঘন্টায় কুয়েতে ১ জন নতুন আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে।

এর থেকে প্রতিয়মান হয় যে, সঠিক চিকিৎসা সেবা পেলে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সুস্থ্য হবার সম্ভাবনা একশত ভাগ। কাজেই করোনা নিয়ে অহেতুক ভয় না পেয়ে এর থেকে রক্ষা পেতে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শগুলি মেনে চলি ও আক্রান্ত হওয়ার লক্ষন দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হই আর মাহান রাব্বুল আলামীনের সাহায্য কামনা করি।

করোনা নিয়ে বিশ্ব সংবাদ

জার্মানিঃ জার্মানির চ্যান্সেলর এঞ্জেলা মার্কেল ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে গেছেন। দেশটিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৪৮৭৩ জনে ও ইতিমধ্য মৃত্যুবরন করেছে ৯৪ জন।

ইতালীঃ দেশটিতে গত ২৪ ঘন্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৬০০ জনের ওপরে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫৯১৩৮ জন, মৃতের সংখ্যা ৫৪৭৬ জন ও ইতিমধ্য সুস্থ্য হয়েছে ৭০২৪ জন। এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যার দিক থেকে ইতালী ১ম স্থানে রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রঃ যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাসের আক্রমন ভয়াবহ আকার ধারন করেছে। দেশটিতে ৩৪৭৫৮ জন আক্রান্ত হয়েছে, মৃত্যুবরন করেছে ৪৫২ জন। শুধু গত ২৪ ঘন্টায়ই মৃতুবরন করেছে ৩৩ জন। নিউ ইয়র্কের অবস্থা খুবই সূচনীয় আকার ধারন করেছে ও এই রাজ্যে লকডাউন করা হয়েছে। নিউ ইয়র্কে আজ ভোরে করোনা আক্রান্ত হয়ে ১ বাংলাদেশী মারা গেছে। এর আগেও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একই রাজ্যে ২ বাংলাদেশী মারা যাবার খবর দেওয়া হয়েছিল।

সৌদি আরবঃ সৌদি আরবে সন্ধ্যা ৭টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কারফিউ জারি করা হয়েছে। ২১ দিন এই কারফিউ বলবৎ থাকবে। দেশটিতে করোনা ভাইরাসে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৫১১ জন।

কুয়েতঃ মধ্যপ্রাচ্যের এই ছোট দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১৮৮ জন। করোনা নিয়ন্ত্রনে দেশটিতে বিকাল ৫টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত কারফিউ জারি করা হয়েছে। সেখানে সরকারীভাবে ছুটি চলছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে ও অধিকাংশ বেসরকারী অফিস ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে সেখানে।

কলম্বিয়াঃ দেশটির একটি জেলখানায় করোনা আতষ্ক ছড়িয়ে পড়লে দাঙ্গায় ২৩ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

ইসরায়েলঃ মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটিতে গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছে ১৬৭ জন ও মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১২৩৮ জন। এর মধ্য মৃত্যুবরন করেছে ১ জন।

ভারতঃ ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪২৫ জন ও এর মধ্য মৃত্যুবরন করেছে ৮ জন। ভারতের অধিকাংশ রাজ্যে শীঘ্রই লকডাউন করার প্রস্তুতি চলছে।

সারাবিশ্বে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ৩৩৯৭৩৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্য মৃত্যুবরন করেছে ১৪৭০৪ জন ও সুস্থ্য হয়েছেন ৯৯০১৬ জন। আর বিশ্বের ১৯২টি দেশ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত দেখা যায় যে সমস্ত দেশের তাপমাত্রা ২০ ডিগ্রী সেলসিয়াসের নীচে রয়েছে সেই দেশগুলিতেই আক্রান্তের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে অনেক বেশী। বাংলাদেশসহ দক্ষিন এশিয়ার অধিকাংশ দেশে ২৫ ডিগ্রী সেলসিয়াসের ওপরে তাপমাত্রা থাকায় তুলনামূলকভাবে আক্রান্তের সংখ্যা অনেক কম। বাংলাদেশের তাপমাত্রা এখন ২৫ ডিগ্রীর ওপরে থাকায় করোনা ভাইরাস সংক্রমনের হার অনেক কম বলে প্রতিয়মান হয়।

বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বের করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ খবর

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সারাবিশ্বের ১৮৮টি দেশ ও টেরিটরী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩১৮৬৪৯ জন, মৃতের সংখ্যা ১৩৬৭৫ জন, সুস্থ্য হয়ে ফিরেছেন ৯৬০০৬ জন ও চিকিৎসাধীন আছেন ২০৮৯৬৮ জন। আক্রান্তদের মধ্য শষ্কটজনক অবস্থায় আছে ১০১৪২ জন। প্রতিনিয়তই বেড়ে চলেছে এই ভাইরাসে আক্রান্তের ছোবল। সারাবিশ্বের তাপমাত্রা পর্যালোচনা করলে দেখা যায় যে দেশগুলি বেশি আক্রান্ত হয়েছে সেই দেশগুলির তাপমাত্রা ২০ ডিগ্রী সেলসিয়াসের নীচে। আবার যে সমস্ত দেশে ২০ ডিগ্রী সেলসিয়াসের বেশী তাপমাত্রা রয়েছে সেই দেশগুলিতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা তুলনামূলক কম। নিন্মে কয়েকটি দেশের আক্রান্তের সংখ্যা ও সেদেশের তাপমাত্রা দেওয়া হল

দেশের নামতাপমাত্রা (সেলসিয়াস)আক্রান্তের সংখ্যামৃতের সংখ্যা
চীন১৭৮১০৫৪৩২৬১
ইতালী১৪ (মিলান), ২০ (রোম)৫৩৫৭৮৪৮২৫
স্পেন১৩২৮৫৭২১৭৫৩
ইউএসএ২৭০৩১৩৪৯
জার্মানী২৩৯৩৭৯৩
ইরান১৩২১৬৩৮১৬৮৫
ফ্রান্স১৪৪৫৯৫৬২
কুয়েত২০১৮৮
বাংলাদেশ২৬২৭
ভারত২৯৩৯১
মালয়েশিয়া২৭১৩০৬১০
অস্ট্রেলিয়া১৫১৩৫৩
সিঙ্গাপুর২৮৪৫৫
নাইজেরিয়া৩৬২৭

আজও দেশে আরও ৩ জন করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে। এদের ২ জন পুরুষ ও ১ জন নারী। এই নিয়ে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭ জনে। আজ ২ জন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গেছে, ইতিপূর্বে মারা গেছে ২ জন আর আগেই ৩ জন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছিল। এখন চিকিৎসাধীন আছেন ২০ জন। এই তথ্য দিয়েছে আইইডিসিআর। অপরদিকে সিলেটে শহীদ সামসুদ্দিন হাসপাতালে ১০ দিনের জ্বর, কাশি ও শ্বাস কষ্ট নিয়ে ৪ঠা মার্চ ইংল্যান্ড থেকে আসা ও ২০শে মার্চ ভর্তি হওয়া এক মহিলা আজ মৃত্যুবরন করেছে। তার করোনা টেস্টের ফলাফল এখনো পাওয়া যায়নি। অপরদিকে খুলনা সরকারী হাসপাতালে জ্বর, কাশি ও নিমোনিয়ায় আক্রান্ত ২ জন মারা গেছেন আজ। এই ২ জনেরও করোনা টেস্ট করা হয়নি। আজ জ্বর থাকায় বিমান বন্দর থেকে আরো ৩ জনকে সরাসরি হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

আজ থেকে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রনে কুয়েতে কারফিউ

কুয়েত থেকে সাদেক সাখাওয়াৎ হোসে্ন, বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েতে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রনে আজ থেকে কারফিউ শুরু। কুয়েতের স্থানীয় সময় বিকাল ৫টা থেকে ভোর পর্যন্ত প্রতিদিন এই কারফিউ চলবে। কারফিউ অমান্য করলে ৩ বছরের জেল ও জরিমানা করা হবে বলে কুয়েত সরকারের পক্ষ থেকে সেদেশে বসবাসরত সকলকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। দেশটিতে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে সরকারী ছুটি চলছে এবং এই ছুটি আরও ২ সপ্তাহের জন্য বাড়ানো হয়েছে। কুয়েতের শিক্ষা মন্ত্রনালয় সেখানকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি আগস্ট মাস পর্যন্ত বাড়িয়েছে। কুয়েতে সকল আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বেসরকারী প্রতিষ্টান সমূহের অধিকাংশ বন্ধ রয়েছে।

ক্ষুদ্র ও স্বল্প জনসংখ্যার এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১৭৬ জন, এর মধ্য সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছে ২৭ জন ও চিকিৎসাধীন আছেন ১৪৯ জন। আর ক্রিটিকেল অবস্থায় আছে ৫ জন। উল্লেখ্য ইরান ভ্রমন করা কুয়েতি নাগরিকদের মাধ্যমে দেশটিতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমন ঘটে। কুয়েত সরকার ইতিমধ্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) কে দ্রুত চিকিৎসা সামগ্রী সরবরাহ করার জন্য ৪০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদান করেছে।

করোনা ভাইরাস নিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের টুকিটাকি খবর

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

ইরানে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২০৬১০, মৃত্যুবরন করেছে ১৫৫৬ জন, গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছে ৯৬৬ জন ও মৃত্যু হয়েছে ১২৩ জনের। কুয়েতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে মোট ১৭৬ জন ও গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছে ১৭ জন। কুয়েতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়িয়ে আগস্ট পর্যন্ত করা হয়েছে। সৌদি আরবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯২ জন ও গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছে ৪৮ জন। বাহরাইনে আক্রান্ত হয়েছে ৩১০ জন, ইতিমধ্য মারা গেছে ১ জন ও গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে ১২ জন। সংযুক্ত আরব আমিরাতে আক্রান্ত হয়েছে ১৫৩ জন, মৃত্যুবরন করেছে ১ জন আর গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১৩ জন। আমিরাতে সমূদ্র সৈকত, পার্ক, সুইমিং পুল ও সিনেমা হল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কাতারে আক্রান্ত হয়েছে ৪৮১ জন ও গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছে ১১ জন। দেশটিতে করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত নির্দেশনা অমান্য করায় শনিবার ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওমানে আক্রান্ত হয়েছে ৫২ জন ও গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছে ৪ জন।

মধ্যপ্রাচ্যের আরেক দেশ জর্ডানে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৮৫ জন। দেশটিতে কারফিউ জারি করে সাইরেন বাজানো হচ্ছে। লেবাননে ২৩০ জন আক্রান্ত হয়েছে, এর মধ্য ৪ জন মৃত্যুবরন করেছে আর গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে ৫৩ জন। করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ন্ত্রনে আনতে দেশটিতে কারফিউ জারি করা হয়েছে। ফিলিস্তিনে আক্রান্তের সংখ্যা ৫২ জন ও মৃত্যুবরন করেছে ৪ জন। ইরাকে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২১৪ জন, মৃত্যুবরন করেছে ১৭ জন ও গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছে ৬ জন। ইরানে আক্রান্ত হয়েছে ২০৬১০ জন, মৃত্যুবরন করেছে ১৫৫৬ জন, গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যুবরন করেছে ১২৩ জন ও আক্রান্ত হয়েছে ৯৬৬ জন। মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশ ইয়েমেন ও সিরিয়ায় আক্রান্তের কোন খবর পাওয়া যায়নি। মধ্যপ্রাচ্যের আরেক দেশ ইসরায়িলে আক্রান্তের সংখ্যা ৮৮৩ জন, মৃত্যুবরন করেছে ১ জন ও ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১৭৮ জন।

পাপাচার, অনাচার, অত্যাচারে ভারসাম্যহীন ধরনীতে ভারসাম্য আনতেই করোনা ভাইরাসের আগমন

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ


সারাবিশ্ব স্থবির হয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাসের কারনে। সািশ্বে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ২১৯৩৪৫ জন, এর মধ্য মৃত্যু বরন করেছে ৮৯৬৯ জন, চিকিৎসাধীন আছেন ১২৪৬৩১ জন। প্রতি ক্ষনে এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা জ্যামিতিক হারে বাড়ছে। বিশ্বের ১৭৬টি দেশে ইতিমধ্য ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। বাংলাদেশেও এই পর্যন্ত ১৪ জন আক্রান্ত হয়েছে এই ভাইরাসে। এর মধ্য গতকাল ১ জন ৭০ বছর বয়সের বৃদ্ধ মারা গেছেন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রিয় স্বদেশে চিকিৎসাধীন অবস্থায়। শুনেছি তার দাফন-কাপন চিরাচরিতভাবে হবে না। ভাবতেই খারাপ লাগছে কেননা তারও স্বজনরা রয়েছেন, এই অবস্থার পরিপেক্ষিতে না জানি তাদের কি অবস্থা হয়েছে। অত্যান্ত ঘন বসতির একটি দেশ বাংলাদেশ, এই ভাইরাসের ছোবলে মহামারি আকার ধারন করতে পারে প্রিয় এই মাতৃভূমি।


এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসের কোন প্রতিষেধক আবিস্কার হয়নি। তাই যে পদ্ধতিতে চিকিৎসা চলছে তা সন্তুসজনক নয় ও তা কাজেও আসছে না। বিশ্বের বড় বড় মহা উন্নত দেশগুলোও এই ভাইরাসের প্রকোপ ঠেকাতে পারছে না। বরং উন্নত দেশ চীনেই এর উৎপত্তি। চীনে প্রায় ৩৫০০ মানুষ মারা গেছে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে। চীনের পর অতি উন্নত দেশ ইতালীতে এখন মহামারি আকার ধারন করেছে এই ভাইরাসের আক্রমনে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজারের ওপরে। বড় বড় চিকিৎসকরা অতি উন্নত ও দামি ঔষধ দিয়েও এই ভাইরাসকে পরাস্ত করতে পারছেন না। গোটা ইউরোপে এই ভাইরাস মহামারি আকার ধারন করেছে। এতো শক্তিশালী ও অতি উন্নত প্রবল পরাক্রমশালী যুক্তরাষ্ট্রে এই ভাইরাসের হানায় মারা গেছে ১৫০ জনের বেশী। তারা পারলো না এই ভাইরাসকে পরাস্ত করতে। তা হলে স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন জাগে এই ভাইরাস কোথা থেকে আসলো, কেই বা এর কারিগর। কেনই বা এই ভাইরাস এই সময়ে হানা দিল। আর এই প্রশ্নের মধ্যই এর রহস্য লোকায়িত। আসুন একটু বিস্তারিত আলোচনা করি।

পৃথীবিতে চলছে এখন আদিম যুগের মত অনাচার। দুর্বলের ওপর সবলের অত্যাচার সীমা ছাড়িয়ে গেছে। বিশ্ব নেতারা অপেক্ষাকৃত দুর্বল দেশগুলিকে নিয়ে রক্তের হুলি খেলছেন। কোন অবস্থায়ই এই হোলি খেলা বন্ধ হচ্ছে না। দুর্বল দেশগুলিকে শাসন ও করায়ত্ত করে রাখার জন্য হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করছেন। কেউ তাদের ক্ষমতাকে ধমিয়ে রাখতে পারছে না। আমেরিকা, ব্রিটেন, চীন, ফ্রান্স ও রাশিয়া সারাবিশ্বকে করায়ত্ত্ব করে রেখেছে। এরা মিলে ইরাক, সিরিয়া, আফগানিস্তান, ফিলিস্তিন ও ইয়েমেনসহ অনেক মুসলিম দেশকে ধংসের দাড়প্রান্তে নিয়ে গেছে। প্রতিদিনই এখানে হোলি খেলা চলছে রক্ত দিয়ে। কিভাবে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে মায়ানমারের সামরিক জান্তা তা প্রত্যক্ষ করেছে সারাবিশ্ব। বৃহৎ শক্তিগুলির ইন্দনেই এই হত্যাযজ্ঞ হয়েছে। লক্ষ লক্ষ মানুষ মারা যাচ্ছে ওই বৃহৎ শক্তিগুলির কুটচালে। সারাবিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে তারা অশান্তি ছড়িয়ে দিয়েছেন শয়তানের মত বুদ্ধি দিয়ে। সারা বিশ্বের অপেক্ষাকৃত দুর্বল দেশগুলিকে তারা কৌশলে পরাধীন করে রেখেছে। কোন কিছু দিয়েই বিশ্ব নেতাদের ধমানো যাচ্ছিল না। সারা পৃথিবী ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছে যা মানুষের পক্ষে আর ফিরিয়ে আনা সম্ভব নয়। অথবা মানুষের সেই ইচ্ছাও নেই।
ঘরে বাইরে চলছে নানা অনাচার, পৃথীবির অধিকাংশ মানুষ আজ নিজের স্বার্থ ছাড়া আর কিছু ভাবে না। জীনা, হারাম কাজ, ঘোষ, খুন, রাহাজানি এই সব নিয়েই মানুষ এখন বেশী ব্যস্ত। এমনকি টাকার লোভে কুটচালে পড়ে মানুষ নিজের সন্তানকেও হত্যা করছে। এমনই নানা অনাচারে পৃথিবী যখন তার ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে তখনই ভারসাম্য ফিরিয়ে আনতে আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে নানা বালামশিবত আসে। এই করোনা ভাইরাসের আক্রমন হয়ত তেমনই কোন ইশারায় হতে পারে যাতে করে মানুষ বুঝতে পারে ও পাপাচার কমিয়ে দেয়, পৃথিবী কিছুটা ভারসাম্য ফিরে পায়।
মুসলমানদের ঈমান কোন পর্যায়ে চলে গেছে যে আমরা করোনা ভাইরাসের আক্রমন থেকে রক্ষার জন্য মসজিদে যেয়ে নামাজ পড়া বন্ধ করে দিয়েছি। আবার কোথাও মসজিদের মাইকে আজানের মাধ্যমেই বলা হয় আপনারা বাসায় নামাজ পড়ুন। ঈমান সাহেব থেকে মুসল্লি সকলেই আমরা দুর্বল ঈমান ধারন করি নচেৎ্‌ ঈমাম সাহেব কেন সাহস যোগাতে পারলেন না, বলতে পারলেন না তোমরা মসজিদে আস, নামাজ কায়েম কর।
আর এসব কিছু খেয়াল করলে দেখা যাবে এই অবস্থায় করোনা ভাইরাসের হস্তক্ষেপ হয়ত বা মহান আল্লাহ তাআলার ইশারায়ই হয়েছে। এতে করে মানুষ হয়তবা নিজেকে অতিশক্তিশালী কিংবা প্রবল পরাক্রমশালী ভাবা একটু কমিয়ে দিবে। এতে পৃথিবী হয়ত একটু ভারসাম্য ফিরে পাবে।

একটু খেয়াল করলে দেখবেন বিশ্ব সম্রাট ট্রাম্প সপ্তাহ ধরে জনসম্মুখে আসছেন না আর গাড় তেরা করে কোন দেশকে শাসাচ্ছেনও না। কানাডার প্রধানমন্ত্রী ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে চলে গেছেন,করোনার ভয়ে বৃটেনের রানী রাজাসহ রাজপ্রাসাদ ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন। বড় বড় দেশের বড় বড় বিশ্ব নেতাদের এখন ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা। ইরাক, ইরান, আফগানিস্তান, ইয়েমেন কিংবা এই সমস্ত দেশে যুদ্ধ বিস্তারে আপাতত তারা ক্ষান্ত। এখন পৃথিবীতে কিছুটা ভারসাম্য ফিরে এসেছে বলে মনে হয়। মানুষের মধ্য ভয় ঢুকেছে, পাপাচারও অনেকটা কমে গেছে। পাপে ডুবে আছে পুরা পৃথিবী তাই মনে হয় যথাযত সময়েই করোনা ভাইরাসের আগমন হয়েছে পাপাচারের মহৌষধ হিসাবে।
বাংলাদেশের সামাজিক, রাজনৈতিকসহ সকলদিক বিবেচনা করলে দেখা যায় এখানে ন্যয় নীতির কোন বালাই নাই, চারদিকে মানুষ ব্যস্ত লুটপাটে, দুর্বলের ওপর সবলের অত্যাচার বেড়েই চলেছে, সমাজ চালায় মন্দ লোকেরা, প্রকাশ্যে চলে মাদকের ব্যবসা, রক্ষকেরা হয়ে গেছে ভক্ষক, ভাল মানুষ সমাজে নিগৃহীত হচ্ছে। এইসবের লাগাম কোন অবস্থাতেই টানা যাচ্ছে না। এই সব নির্বিচারে চলতে পারে না অনিদৃষ্টকাল। তাই মহান আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকেই হয়ত এই করোনা ভাইরাসের আক্রমন শুরু হয়েছে যাতে করে মানুষ যেন কিছুটা বুঝতে পারে মানুষের অমানুষিক, অমানবিক, অসামাজিক কিংবা সকল অনাচারকে রুখতেই এসেছে করোনা ভাইরাস। একমাত্র মহান আল্লাহ তাআলাই পারেন এই ভাইরাসের আক্রমন থেকে মানুষকে বাঁচাতে ও এর প্রকোপ ঠেকাতে। তাই আসুন সকলেই এই ভাইরাসের আক্রমন থেকে বাঁচতে মহান রাব্বুল আলামীনের সাহায্য কামনা করি ও আল্লাহ তাআলার নির্দেশিত পথে চলি।

দেশে নতুন করে আরও ২ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

দেশে নতুন করে আরও ২ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী সনাক্ত করা হয়েছে। এদের ২ জনই পুরুষ, একজন ইতালী ও আরেকজন আমেরিকা থেকে এসেছেন। এই নিয়ে দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ১০ জন। সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা সোমবার এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

দেশে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৪৩ জন ও আইসোলেশনে আছেন ১৬ জন। মোট ১০ জন আক্রান্তের মধ্য সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩ জন। আর চিকিৎসাধীন আছেন ৭ জন। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত সারাবিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১৮২৭৫০ জন, সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৭৯৮৮৪ জন, চিকিৎসাধীন আছেন ৯৫৬৯২ জন ও মৃত্যুবরন করেছেন ৭১৭৪ জন।

দেশে নতুন করে আরও ৩ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত আরও ৩ জন রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। আক্রান্ত ৩ জনই একই পরিবারের। এদের একজন মহিলা ও অপর ২ জন শিশু। এরা ইতালী থেকে আগে আসা করোনা ভাইরাস আক্রান্ত একজনের স্বজন। সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) এর পরিচালক অধ্যাপক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা সোমবার নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। এদিকে করোনার বিস্তার রোধ ও এর থেকে রেহাই পেতে শিক্ষা মন্ত্রনালয় দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখার ঘোষনা দিয়েছে। ফলে কাল থেকে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে সরকারসহ দেশের সকল মানুষের ভাবনার পরিপেক্ষিতে শিক্ষা মন্ত্রনালয় এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

শনিবার পর্যন্ত দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৫ জন। এর মধ্য ৩ জন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন এবং ২ জন চিকিৎসাধীন ছিলেন। আর আজ আরও ৩ জন শনাক্ত হওয়ায় এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ৮ জন। ইতালী থেকে আগত করোনা আক্রান্ত বাংলাদেশীদের মাধ্যমেই এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে দেশে। বিশ্বের ১৫৮টি দেশে ইতিমধ্য এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। চীনের পর ইতালীতে এই ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বেশী। সোমবার দুপুর ৩টা পর্যন্ত সারা বিশ্বে এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে ১৭০১৯২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৬৫২৬ জন। চিকিৎসাধীন আছেন ৮৫৮৮০ জন ও সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭৭৭৮৬ জন। আর চিকিৎসাধীনের মধ্য আশষ্কাজনক অবস্থায় আছেন ৫৯২৫ জন।

বাংলাদেশ সময় শনিবার (১৪.০৩.২০২০) দুপুর ২টা পর্যন্ত বিশ্ব করোনা ভাইরাস সংবাদ

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

সারাবিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১৪৫৮৩৫ জন এবং ইতিমধ্য মৃত্যু বরন করেছে ৫৪৩৮ জন। সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৭২৫৫০ ও চিকিৎসাধীন আছেন ৬৭৮৪৭ জন। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আশষ্কাজনক অবস্থায় আছে ৬০৮২ জন। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৩৬৩ জন ও মৃত্যুবরন করেছে ২২ জন। বাংলাদেশে নতুন করে আর কেউ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। আগের শনাক্ত ৩ জনের ১ জন সুস্থ্য হয়ে ইতিমধ্য বাড়ি ফিরে গেছেন। তবে সারাদেশে বিদেশ ফেরতদের শনাক্ত করে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

বিশ্বের ১৪৫টি দেশে করোনা ভাইরাস বিস্তার লাভ করেছে। নিন্মে বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের করোনা আক্রান্তের পরিসংখ্যান দেওয়া হলঃ

ইতালী থেকে ১৪২ বাংলাদেশী এমিরেটসের একটি বিমানে করে দেশে ফিরেছেন

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

এমিরেটসের একটি বিমানে করে দুবাই হয়ে ১৪২ জন বাংলাদেশী শনিবার সকালে দেশে ফিরে এসেছেন। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে সকালে ১৪২ বাংলাদেশীকে নিয়ে অবতরন করলে বিমানটিকে নিরাপদ দুরত্বে ল্যান্ড করে রাখা হয়। বিমান বন্দরে আগে থেকেই অবস্থান করা নিরাপত্তা ও মেডিকেল স্টাফরা এই যাত্রীদের গাইড করে আসকোনা হাজি ক্যাম্পে নিয়ে আসে। তবে যাত্রীদের অনেকেই হাজি ক্যাম্পে কোয়ারেন্টাইনে যেতে চাচ্ছিলেন না। অনেককে তাদের সেবায় নিয়োজিত নিরাপত্তা ও মেডিকেল স্টাফদের সাথে ঝগড়া করতে দেখা যায়। যাত্রীরা হাজি ক্যাম্পের অব্যবস্থাপনার কথা তুলে ধরেন সংবাদ কর্মীদের সাথে। আবার অনেকে দাবি করছেন তারা করোনা ভাইরাসের উপসর্গ থেকে মুক্ত। আগত যাত্রীদের স্বজনরা হাজি ক্যাম্পের সামনে অবস্থান করেছেন তাদের স্বজনদের খোঁজখবর নেওয়ার জন্য। এই ক্যাম্পে ইতালী থেকে আগত যাত্রীদের ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে যাতে করে এদের মধ্য কেউ করোনায় আক্রান্ত থাকলে শনাক্ত করা সহজ হয়। এর আগে একই ক্যাম্পে চীনের উহান থেকে আসা ৩১৪ জন বাংলাদেশীকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছিল। এদের মধ্য একজনেরও করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়নি। ১৪ দিন পর এরা সকলেই নিজ নিজ বাড়িতে ফিরে গেছেন।

উল্লেখ্য ২ মাস আগে চীনের উহান প্রদেশে প্রথমে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়। তখন থেকে চীনে এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ও মৃত্যুর মিছিল বাড়তেই ছিল। চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৮০৮২৪ জন। চীনে ইতিমধ্য মৃত্যুর সংখ্যা দাড়িয়েছে ৩১৮৯ জন। তবে চীনে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা অনেক কমে এসেছে। চীনের পরেই আক্রান্তের সংখ্যা ও মৃত্যুর সংখ্যার দিক থেকে ২য় স্থানে রয়েছে ইতালী। ইতালীতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১৭৬৬০ জন ও মৃত্যু বরন করেছে ১২৬৬ জন। এর আগে ইতালী থেকে আগত ২ বাংলাদেশীর মধ্য করোনা ভাইরাস শনাক্ত হলে এদেরকে বিশেষভাবে আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এই দুইজনের সংস্পর্শে এসে তাদের আরো একজন স্বজন আক্রান্ত হলে বাংলাদেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায় ৩ জনে। আর ইতালী থেকে আগত এই দুই বাংলাদেশীর মাধ্যমেই দেশে প্রথম করোনা ভাইরাস প্রবেশ করে। উল্লেখ্য গত রবিবারের পর থেকে দেশে আর কোন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়নি।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সর্বশেষ অবস্থা জেনে নিন

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

করোনার সর্বশেষ সংবাদঃ
সারা বিশ্বের ১৩৫টি দেশে করোনা ভাইরাস হানা দিয়েছে। বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাত ১০টা (১৩.০৩.২০২০) পর্যন্ত সারাবিশ্বে মোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১৩৯৬৩৭ জন। এর মধ্য সুস্থ্য হয়েছেন ৭০৩৩৩ জন এবং মৃত্যুবরন করেছেন ৫১২০ জন। চিকিৎসাধীন আছেন ৬৩৭৮৪ জন। আর ক্রিটিকেল অবস্থায় আছেন ৫৭৯০ জন। এই পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর হার ৩.৬৭%। বাংলাদেশে নতুন করে একজনকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সনাক্ত করা হয়েছে। আগের সনাক্ত ৩ জনের মধ্য ১ জন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

চীনের পর সবচেয়ে বেশী আক্রান্ত ও মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে যার সংখ্যা যথাক্রমে ১৫১১৩ জন ও ১০১৬ জন। এর পরেই রয়েছে ইরানের অবস্থান। ইরানে মোট ১১৩৬৪ জন আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্য ইতিমধ্য মৃত্যুবরন করেছে ৫১৪ জন। এ ছাড়া স্পেনে ১২২ জন, দক্ষিন কোরিয়ায় ৭১ জন, ফ্রাঞ্চে ৬১ জন ও যুক্তরাষ্ট্রে ৪১ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরন করেছে। গত ২৪ ঘন্টায় সারা বিশ্বে ৫০৮১ জন নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যুবরন করেছে ১৪৬ জন।


বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বের করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ খবর জেনে নিন

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে মোট ১২৭৮১০ জন। এর মধ্য এই সময়ের মধ্য মারা গেছে ৪৭১৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৬৮৩৩৫ জন। আর চিকিৎসাধীন আছেন ৫৪৭৫৯ জন। এর মধ্য আশষ্কাজনক অবস্থায় আছেন ৫৭১১ জন। গত চব্বিশ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১৬১১ জন। বাংলাদেশে নতুন করে আর করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়নি। তবে সারাদেশে বিদেশ ফেরত ৩ শতাধিক ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। বিদেশ থেকে আসা সকল যাত্রীকে নিজ থেকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। এদিকে করোনা শনাক্ত ৩ জনের মধ্য ২ জন সুস্থ্য হয়ে উঠছেন বলে আইইডিসিআর থেকে জানানো হয়েছে।

নিন্মে বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার (১২.০৩.২০) বিকাল সাড়া ৫টা পর্যন্ত সারাবিশ্বে করোনা আক্রান্তের পরিসংখ্যানের ছক দেওয়া হলঃ

Country,TotalNewTotalNewTotalActiveSerious,Tot Cases/
OtherCasesCasesDeathsDeathsRecoveredCasesCritical1M pop
China80,796183,1691162,81314,8144,25756.1
Italy12,462 827 1,04510,5901,028206.1
Iran10,0751,075429752,9596,687 120
S. Korea7,8691146663337,47054153.5
France2,281 48 122,22110534.9
Spain2,277 55 1832,03912648.7
Germany1,966 3 251,938923.5
USA1,3363538 151,283104
Diamond Princess696 7 32536432 
Norway68758  1686 126.7
Switzerland652 4 4644 75.3
Japan6434161118509265.1
Denmark615101  16142106.2
Netherlands503 5 2496129.4
Sweden500 1 1498249.5
UK460 8 18434 6.8
Belgium314 3 1310227.1
Austria30256114297133.5
Qatar262    262 90.9
Bahrain195   351601114.6
Singapore178   96821230.4
Australia156283 2612716.1
Malaysia149   2612324.6
Hong Kong130 3 7750617.3
Canada11881 910813.1
Israel1003  496211.6
Greece99 11 9829.5
Czechia94    94 8.8
Iceland85    85  
Kuwait808  575418.7
UAE74   175727.5
India7311  469 0.1
Iraq71 811548 1.8
Thailand70111 353411
San Marino69 3  663 
Brazil6917   6920.3
Lebanon68 31164310
Egypt67 1 2739 0.7
Finland65   164 11.7
Portugal61    6116
Slovenia57    57 27.4
Philippines5232 24810.5
Taiwan4911 2028 2.1
Romania492  64312.5
Poland4716   4731.2
Saudi Arabia45   144 1.3
Ireland43 1  42 8.7
Vietnam39   1623 0.4
Indonesia34 1 330 0.1
Palestine30    30 5.9
Russia28   325 0.2
Algeria24411815 0.5
Georgia24    2416
Chile23    23 1.2
Costa Rica22    2214.3
Argentina21 1  2010.5
Pakistan20   218 0.1
Croatia19    19 4.6
Luxembourg1912   19  
Serbia191   19 2.2
Oman18   99 3.5
Ecuador17    1711
Peru17    17 0.5
South Africa174   17 0.3
Estonia16    16 12.1
Latvia166  115 8.5
Hungary163   16 1.7
Albania15 1  14 5.2
Panama14 1  13 3.2
Belarus123  39 1.3
Mexico121  4810.1
Azerbaijan11   38 1.1
Bosnia and Herzegovina114   11 3.4
Brunei11    11  
Macao10   100  
Slovakia10    10 1.8
North Macedonia9   18 4.3
Colombia9    9 0.2
Malta92   9  
Maldives8    8  
Bulgaria7 1  6 1
Afghanistan7    7 0.2
Tunisia7    710.6
Morocco6 1  510.2
Cyprus6    6 5
French Guiana6    6  
Cambodia5   14 0.3
Dominican Republic5    5 0.5
New Zealand5    5 1
Paraguay5    510.7
Senegal4   13 0.2
Lithuania3    3 1.1
Bangladesh3    3  
Channel Islands31   3  
Cuba3    3 0.3
Liechtenstein3    3  
Martinique3    3  
Moldova3    3 0.7
Nigeria2    2  
Sri Lanka2   11 0.1
Bolivia2    2 0.2
Burkina Faso2    2 0.1
Cameroon2    2 0.1
Faeroe Islands2    2  
Honduras2    2 0.2
Jamaica2    2 0.7
Saint Martin2    2  
Guyana1111 0  
Andorra1    1  
Armenia1    1 0.3
Jordan1    1 0.1
Monaco1    1  
Nepal1   10  
Ukraine1    1  
Bhutan1    1  
Ivory Coast1    1  
DRC1    1  
French Polynesia1    1  
Gibraltar1   10  
Vatican City1    1  
Mongolia1    1 0.3
Réunion1    1  
St. Barth1    1  
St. Vincent Grenadines1    1  
Togo1    1 0.1
Turkey1    1  
Total:1278101,6114,7169968,33554,7595,71116.4

করোনায় কোন দেশে কত জন আক্রান্ত হয়েছে, কতজন সুস্থ্য হয়েছে এবং কতজন মারা গেছে তার হিসাব দেখুন( ১০.০৩.২০২০ পর্যন্ত)

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

সারাবিশ্বের ১১৫ দেশে মোট ১১৪৮০৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এর উৎপত্তিস্থল চায়না এবং এ পর্যন্ত চায়নাতেই সর্বাধিক আক্রান্ত ও মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্য মারা গেছে ৪০৩১ জন, সুস্থ্য হয়েছে ৬৪২৭৭ জন এবং চিকিৎসাধীন আছে ৪৬৫০১ জন। ১০ই মার্চ ২০২০ পর্যন্ত বিশ্বের কোন কোন দেশে কতজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে, আক্রান্তদের মধ্য কতজন মারা গেছে, কতজন সুস্থ্য হয়েছে এবং নতুন করে কোন দেশে কতজন আক্রান্ত হয়েছে তার পরিসংখ্যান নিন্মে দেওয়া হলঃ


কুয়েতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫৬

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

কুয়েতে গত ২৪ ঘন্টায় করোনা ভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১০ জন। এই নিয়ে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ৫৬ জনে। আক্রান্তদের সকলকেই একটি বিশেষায়িত হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। সেখানে তাদেরকে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। কুয়েতের স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় থেকে জারি করা একটি নোটিশে সেদেশে বসবাসরত সকলকে জনাকীর্ন স্থানে যাতায়ত পরিহার করতে বলা হয়েছে এবং সাবধানতা অবলম্বন করতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। কুয়েত বিমান বন্দর ব্যবহারকারী সকলকে একটি অতিরিক্ত ঘোষনাপত্রে স্বাক্ষর করতে হচ্ছে।

কুয়েতের পাবলিক হেলথ আন্ডার সেক্রেটারী বুথাইনা আল মোদাফ সাংবাদিক সম্মেলনে জানিয়েছেন, নতুন করে আক্রান্তরা ইরান থেকে এসেছেন। দেশটিতে করোনা ভাইরাস কোবিদ-১৯ এ আক্রান্তরা সকলেই স্থিতিশীল অবস্থায় আছে। ৪টি বিমানে করে ইরান থেকে আসা ৪৩৪ জন কুয়েতি ও থাইল্যান্ড থেকে ফিরে আসা ১৮৯ জন কুয়েতিকে গ্রহন করার জন্য কুয়েতি স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তারা বিমান বন্দরে উপস্থিত থাকবেন এবং আগত কুয়েতিদের প্রয়োজনীয় টেস্ট সম্পূর্ণ করবেন। এই অবস্থার পরিপেক্ষিতে কুয়েতের এডুকেশন মিনিস্ট্রি আরো দুই সপ্তাহ সেদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার চিন্তা ভাবনা করছে। এদিকে কুয়েতের স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় ক্রমবর্ধমান চাহিদার পরিপেক্ষিতে আরো ৩৬ লক্ষ মাস্ক আমদানি করবে বলে জানিয়েছে। সূত্রঃ গালফ নিউজ।

মধ্যপ্রাচ্যে দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে করোনা ভাইরাস

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

চীনসহ সারা বিশ্বে দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে করোনা ভাইরাস। এই পর্যন্ত ৪০টি দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী সনাক্ত করা হয়েছে। এর উৎপত্তিস্থল চীনে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশ। প্রাণঘাতী এ ভাইরাস ইতোমধ্যে সারাবিশ্বে মৃত্যু ঘটিয়েছে ২ হাজার ৭৬৩ জনের। যাদের মধ্যে ২ হাজার ৭১৫ জনই মারা গেছেন চীনে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলিতে উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। তাদের মধ্যে ইরানে ১৫ জন মারা গেছে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে।

ইরানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, সেখানে এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ৯০ জনে। দেশটির উপ স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং একজন এমপিও এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া দক্ষিণ কোরিয়ায় ১২ জন, ইতালিতে ১১ জন, জাপানে ৫ জন, হংকংয়ে ২ জন এবং ফিলিপিন্স, ফ্রান্স ও তাইওয়ানে একজন করে আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে। ছোট দেশ কুয়েতে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৮ জন। দেশটিতে আতংস্ক বিরাজ করছে। মধ্যপ্রাচ্যের অন্যদেশগুলি ইরানের সাথে বিমান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। ইরানের সাথে সীমান্তও বন্ধ করে দিয়েছে প্রতিবেশী আরব দেশগুলি। ইরানের ১০টি প্রদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। স্থবির হয়ে পড়েছে ইরানের জনজীবন।

চীনের পর দক্ষিন কোরিয়ায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেশী। এখানে আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে ১১৪৬ জন। এর পরেই আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে বেশী রয়েছে ইটালীতে। ইটালী থেকে এই ভাইরাস ইরোপের অন্যান্য দেশ ও দক্ষিন আমেরিকায়ও ছড়িয়ে পড়ছে। সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ হাজার ৯৭০ জন। এর মধ্যে শুধু চীনেই রয়েছে ৭৮ হাজার ৬৪ জন। দক্ষিন কোরিয়ার ১৮ জন সেনা সদস্যও আক্রান্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। এর মধ্য ১ জন আমেরিকার সৈন্যও রয়েছে। এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসের প্রতিষেধক আবিস্কার হয় নাই। বিশ্বের সর্বত্র এই ভাইরাস নিয়ে উদ্ভেগ-উৎকণ্ঠা চলছে।

1 2 3 4 5 37