অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ স্থান ধরে রেখেছেন সাকিব

সাকিবকে নিয়ে ইতিবাচক ও নেতিবাচক দুই ধরনের আলোচনাই আছে সমানতালে। সাকিব কখনো নন্দিত, আবার কখনো নিন্দিত নিজ কর্মমানে। আলোচনা আর সমালোচনা দুটোই সমানতালে চলে তার ক্ষেত্রে। আইসিসির ওয়ানডে ক্রিকেটের নতুন অলরাউন্ডিং র‍্যাঙ্কিংয়ে আবারও ১ম স্থান ধরে রেখেছেন সাকিব। আইসিসির ওয়ানডে ক্রিকেটের নতুন র‍্যাঙ্কিংয়ে সাকিবের পয়েন্ট ৪১২। ৩৯৪ পয়েন্ট নিয়ে সাকিবের পরেই ২য় স্থানে আছেন আফগানিস্তানের মোঃ নবী। ৩ নাম্বারে আছেন বেন স্টোকস।

অপরদিকে আইসিসির ব্যাটিং রেটিংয়ে ২২তম অবস্থান থেকে ১৯তমে এসেছেন তামিম ইকবাল। নিউজিল্যান্ডে ২য় ওয়ানডেতে ভাল করার কারনে তার এই উন্নতি ঘটে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের জন্য ১৮ সদস্যের বাংলাদেশ দল ঘোষনা

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের জন্য ১৮ সদস্যের বাংলাদেশ দল ঘোষনা করেছে বিসিবি। শনিবার দুপুরে এই চূড়ান্ত দল ঘোষনা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। দলে ক্যাপ্টেন হিসাবে থাকছেন মমিনুল হক। বাকি সদস্যরা হলেন-তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, নাজমুল হোসেন শান্ত, মোহাম্মদ মিথুন, লিটন দাস, ইয়াসির আলী, মুস্তাফিজুর রহমান, সাইফ হাসান, তাইজুল ইসলাম, মেহেদী হাসান মিরাজ, সাদমান ইসলাম, নাঈম হাসান, তাসকিন আহমেদ, আবু জায়েদ রাহী, ইবাদত হোসেন ও হাসান মাহমুদ। ঘোষিত দলে নতুন হিসাবে ডাক পেয়েছেন পেসার হাসান মাহমুদ। অপরদিকে প্রাথমিক দল থেকে বাদ পড়েছেন খালেদ আহমেদ ও নুরুল হাসান সোহান।

দুই ম্যাচ সিরিজের ১ম টেস্ট শুরু হবে ৩রা ফেব্রুয়ারী চট্রগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে এবং ২য় ম্যাচটি শুরু হবে ১১ই ফেব্রুয়ারী ঢাকায় সের ই বাংলা ন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

কাকতালীয়ভাবে ৩ জনই রান করেছেন ৬৪ করে

৩ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের দুটিতে জয়লাভ করে বাংলাদেশ ইতিমধ্য সিরিজ জিতে গেছে। তাই তৃতীয় ম্যাচটি নিয়ে তেমন কোন উত্তেজনা বা গুরুত্ব ছিল না। টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ ৫০ ওভার খেলে ৬ উইকেটে ২৯৭ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ২৯৮ রানের বিশাল লক্ষ দেয়। এই খেলায় গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল বাংলাদেশের ইনিংসে তামিম, সাকিব, মুশফিকুর ও মাহমুদুল্লাহ প্রত্যেকেই হাফ সেঞ্চুরী করেছেন। এর মধ্য সাকিব করেছেন ৫১ রান। আর বাকি ৩ জনই ৬৪ করে রান করেছেন। তাই এই ম্যাচ কিছুটা হলেও বাড়তি আনন্দ দিয়েছে।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ৫ উইকেট হারিয়ে ২৬ ওভারে ৯৪ রান সংগ্রহ করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। মোস্তাফিজ ও সাইফুদ্দিন দুটি করে উইকেট নেন। অপরদিকে মেহেদী হাসান মিরাজ পান ১টি উইকেট। চট্রগ্রাম জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে খেলাটি চলছে।

তৃতীয় সন্তানের বাবা হতে চলেছেন সাকিব আল হাসান

আবারও বাবা হতে চলেছেন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। এটি হবে তার তৃতীয় সন্তান। মা শিরিন রেজাকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরে সাংবাদিকদের নিজেই এই খবর জানিয়েছেন সাকিব আল হাসান। আজ রবিবার সকাল ১০টায় কাতার এয়ার ওয়েজের একটি ফ্লাইটে বিমান বন্দরে পৌছে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেছেন তিনি। তৃতীয় সন্তানের খবরে তিনি রোমাঞ্চিত বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

তিনি দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন যাতে করে সুস্থ্য ও স্বাভাবিকভাবে নতুন সন্তান পৃথীবিতে আসতে পারে এবং বাচ্চার মাও সুস্থ্য থাকে। ২০১২ সালের ডিসেম্বরে উম্মে আহমেদ শিশিরের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন সাকিব আল হাসান। করোনা মহামারীর শুরুতে গত এপ্রিলে দ্বিতীয় কন্যা সন্তানের বাবা হন সাকিব এবং তার নাম রাখেন ইরাম হাসান। এর আগে ২০১৫ সালে সাকিব প্রথম কন্যা সন্তান আলায়না হাসান অব্রির বাবা হন। দীর্ঘ ১৬ মাস পরে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আসন্ন বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে খেলতে যাচ্ছেন তিনি।

বাংলাদেশ সফরে দলে নেই হোল্ডার, কিরন পোলার্ডসহ আরও অনেকে

তিনটি ওয়ানডে ও দুইটি টেস্ট ক্রিকেট খেলার জন্য ১০ই জানুয়ারী বাংলাদেশ সফরে আসছে ওয়েস্ট ইন্ডিস ক্রিকেট দল। তবে দলে নেই হেভিওয়েট অনেক খেলোয়ারই। জেসন হোল্ডারসহ আরও বেশ কয়েকজন তারকা ক্রিকেটার মহামারীর কারনে বাংলাদেশ সফর থেকে নিজেদের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। হোল্ডার ছাড়া যে ৯জন ক্রিকেটার করোনা সংক্রমণের ভয়ে বাংলাদেশ সফর থেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন নিজেদের তাঁরা হলেন কিরন পোলার্ড, ড্যারেন ব্রাভো, শামারহ ব্রুক্স, রস্টন চেজ, শেল্ডন কটরেল, এভিন লুইস, শাই হোপ, শিমরন হেটমেয়র এবং নিকোলাস পুরান। এছাড়াও ব্যক্তিগত কারণে দলে নেই ফ্যাবিয়ান অ্যালেন এবং শেন ডাউরিক। এমনটাই জানিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিস ক্রিকেট বোর্ড।

দলে হোল্ডার না থাকায় টেস্টে অধিনায়কের দায়িত্ব পাচ্ছেন ক্যারিবিয়ান ওপেনার ক্রেগ ব্রেথওয়েট এবং ওয়ানডে দলের নেতৃত্ব দেবেন জেসন মহম্মদ। ২০শে জানুয়ারি একদিনের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে সফর। শেষ টেস্ট শুরু ১১ ফেব্রুয়ারি। ৩টি একদিনের ম্যাচ এবং ২টি টেস্টের এই সিরিজগুলো ঢাকা এবং চট্টগ্রামের স্টেডিয়ামেই হবে। সূত্রঃ আনন্দ বাজার পত্রিকা।

আবারও বিশ্ব সেরা সাকিব আল হাসানই

ক্রিকেটের অলরাউন্ডার রেঙ্কিংয়ে আবারও সাকিব আল হাসানের নাম প্রথম স্থানে চলে এসেছে। ফলে সাকিব ফিরে পেলেন প্রথম স্থান। আইসিসির নিষেধাজ্ঞার কারনে রেঙ্কিং থেকে বাদ পরেছিল সাকিব আল হাসানের নাম। সম্প্রতি পাকিস্তান এবং জিম্বাবুয়ের মধ্যকার ওয়ানডে সিরিজ শেষ হওয়ার পর অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়ের তালিকা প্রকাশ করেছে আইসিসি। তবে তালিকায় সাকিবের ধারেকাছেও নেই অন্য কোন ক্রিকেটার।

৩৭৩ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে প্রথম স্থানে আছেন সাকিব আল হাসান। তার পরেই রয়েছেন আফগানিস্তানের মোহাম্মদ নবী। তার রেটিং পয়েন্ট ৩০১। তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে রয়েছে ইংল্যান্ডের দুই ক্রিকেটার যথাক্রমে ক্রিস ওকস ও বেন স্টোকস।

ক্রিকেটের ৩ ফরম্যাটেরই র‍্যাংকিং প্রকাশ করেছে আইসিসি

এই র‍্যাংকিংয়ে টেস্ট ফরম্যাটে বাংলাদেশের অবস্থান ১০ নাম্বারে রয়েছে। টেস্ট র‍্যাংকিংয়ে ১ নম্বরে অবস্থান করছে টিম অস্ট্রেলিয়া। তার পরেই রয়েছে যথাক্রমে নিউজিল্যান্ড, ভারত, ইংল্যান্ড, শ্রীলংকা, দক্ষিন আফ্রিকা, পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিস, আফগানিস্তান, বাংলাদেশ, জিম্বাবুয়ে ও আয়ারল্যান্ড। অপরদিকে ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ৭ নাম্বারেই রয়ে গেছে। ওডিআই র‍্যাংকিংয়ে প্রথম আছে আছে ইংল্যান্ড। তারপরেই রয়েছে যথাক্রমে ভারত, নিউজিল্যান্ড, সাউথ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান, বাংলাদেশ, শ্রীলংকা, ওয়েস্ট ইন্ডিস, আফগানিস্তান ও আয়ারল্যান্ড।

টি-২০ ফরম্যাটে বাংলাদেশের বাংলাদেশের অবস্থান ৮ নম্বরে রয়েছে। ২০টি টি-২০ ম্যাচ খেলে বাংলাদেশের পয়েন্ট ২২৯। অপরদিকে ২৪টি টি-২০ ম্যাচ খেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পয়েন্টও ২২৯। কম ম্যাচ খেলে সমান পয়েন্ট অর্জন করায় বাংলাদেশে ওয়েস্ট ইন্ডিজের আগে রয়েছে। এই ফরম্যাটে প্রথমে আছে অস্ট্রেলিয়া। এর পরেই রয়েছে যথাক্রমে ইংল্যান্ড, ইন্ডিয়া, পাকিস্তান, সাউথ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, শ্রীলংকা, বাংলাদেশ, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, আফগানিস্তান, জিম্বাবুয়ে ও আয়ারল্যান্ড।

ওমেন্স ওডিআই র‍্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ৯ম স্থানে রয়েছে। বাংলাদেশের অবস্থান কেবল আয়ারল্যান্ডের ওপরে রয়েছে। এই র‍্যাংকিংয়ে প্রথমেই রয়েছে অস্ট্রেলিয়া এবং এর পরেই রয়েছে যথাক্রমে ভারত, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, সাউথ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিস, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, বাংলাদেশ ও আয়ারল্যান্ড।

ওমেন্স টি-২০ র‍্যাংকিংয়েও বাংলাদেশের অবস্থান ৯ম স্থানে। এই ফরম্যাটে প্রথমেই রয়েছে অস্ট্রেলিয়া নারী দল এবং এর পরেই রয়েছে যথাক্রমে ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, ভারত, সাউথ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিস, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, বাংলাদেশ ও আয়ারল্যান্ড। আইসিসি ১লা মে র‍্যাংকিংয়ের এই তালিকা প্রকাশ করে।

এসএ গেমসের ক্রিকেটে শ্রীলংকাকে হারিয়ে স্বর্ণ জিতেছে বাংলাদেশের মেয়েরা

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

সাউথ এশিয়ান গেমসের ক্রিকেট ফাইনালে শ্রীলংকাকে হারিয়ে স্বর্ণ জিতেছে বাংলাদেশের মেয়েরা। পোখারায় রোববার শ্বাসরুদ্ধকর ফাইনালে বাংলাদেশ জিতেছে ২ রানে। টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে ৮ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের মেয়েরা ২০ ওভারে মাত্র ৯১ রান সংগ্রহ করে। অত্যান্ত বাজে খেলে বাংলাদেশের মেয়েরা নিয়মিত বিরতিতে উইকেট খোয়াতে থাকে। এক পর্যায়ে বাংলাদেশের স্কোর ছিল ৩৬/১ (ওভার ৬)। কিন্তু সপ্তম ওভারে শূন্য রানে বাংলাদেশের ৪ উইকেটের পতন ঘটে।

লংকানরা জয়ের জন্য সহজ টার্গেট পায়। বাংলাদেশের মেয়েরা শুরুতেই আঁটসাঁট বল করতে থাকে। ফলে চাপে পড়ে পাওয়ার প্লেয়ের ৬ ওভারে তারা ৩ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১৫ রান করে। শেষ ওভারে শ্রীলংকার জয়ের জন্য রান দরকার ছিল ৭। কিন্তু তারা ৫ রান করতে সক্ষম হয়। ফলে ২ রানের জয় দিয়ে স্বর্ণ জিতে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ। তবে এটি ছিল শ্রীলংকার অনোর্ধ -২৩ দল।

 

বড় সংগ্রহেরদিকে এগিয়ে যাচ্ছে ভারত, ২৩৬/৪

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

অবশেষে তাইজুল ইসলাম রাহানিকে ফিরান। কিন্তু তার আগে রাহানি ৬৯ বলে ৫১ রান করেন। ইডেন টেস্টের প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ ১০৬ রানে অল আউট হলে প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে আসে ইংল্যান্ড। গতকাল তারা ৩ উইকেট হারিয়ে ১৭৪ রান করে। ২য় দিনে এসে ১ম দিনের অপরাজিত জুটি বিরাট ও রাহানি আগের দিনের স্কোরকে ২৩৬ রানে রূপদান করেন। আর এই সময়ে ৪র্থ উইকেটের পতন ঘটে। তাইজুলের বলে ইবাদত হোসেনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন রাহানি। অপরদিকে বিরাট কোহলি টেস্টে তার ২৭তম সেন্সুরি পূর্ণ করেন ১৫৯ বলে।

বিরাট আর জাদেজার জুটি রানের চাকা সচল রেখে এগিয়ে যাচ্ছেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিরাট কোহলী ১৬৩ বলে ১০৩ রান আর জাদেজা ২৫ বলে ৯ রান করে ব্যাট করছেন। বাংলাদেশের পক্ষে ইবাদত হোসেন ২টি এবং আলামিন ও তাইজুল একটি করে উইকেট লাভ করেন। এর আগে গতকাল বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পশ্চিমবঙ্গের মূখমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী ইডেনে গোলাপি বলে দিবা রাত্রীর টেস্ট উদ্ভোধন করেন।

স্কোরঃ বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসঃ ১০৬ অল আউট

ভারত প্রথম ইনিংসঃ ২৭৬/৪( চলছে)

৮ ফুট ২ ইঞ্চি নম্বা শের খানকে ভারতের কোন হোটেল গ্রহন করলো না

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

ভারতের লখনৌতে চলছে আফগানিস্তান ও ভারতের নারী ক্রিকেট সিরিজের খেলা চলছে। আর এই খেলা দেখতে আফগানিস্তানের কাবুল থেকে এসেছেন শের খান নামে এক ক্রিকেট ভক্ত। ভারতে পৌছেই তিনি হোটেল বুকিং দেওয়ার চেষ্টা করলেন। এক হোটেল থেকে আরেক হোটেলে গেলেন। কিন্তু কোথাও তিনি হোটেল বুকিং করতে পারলেন না।

কোন হোটেল কর্তৃপক্ষই তাকে হোটেলে সিট দিতে চাইলো না। শের খানের জন্য উপযুক্ত দৈর্ঘ্যের বিছানা ছিল না কোন হোটেলেই। কারন শের খানের উচ্চতা ৮ ফুট ২ ইঞ্চি। ফলে শেষ অবদি শের খান থানায় আশ্রয় নেন। অবশেষে পুলিশের সহায়তায় একটি হোটে্লে উঠেছেন। আর এই অবস্থার জন্য শের খান ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। শের খানকে দেখতে হোটেলের সামনে প্রচুর মানুষ জমা হয়েছে।

ক্রিকেটারদের আন্দোলন নিয়ে সাকিবের চাতুরতা

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

সাকিব আল হাসানকে চেনে না দেশে এমন মানুষ খুবই বিরল। ক্রিকেটের বদৌলতে দেশ ছাড়িয়ে তার খ্যতি এখন সারাবিশ্বে। অনেকবার তিনি ক্রিকেটের অলরাউন্ডারে বিশ্বসেরা হয়েছেন। এই সুবাদে তিনি ব্যবসা ও বিজ্ঞাপন মিলিয়ে শত কোটি টাকার মালিক। মিডিয়ার একটি অংশের সাথে তার রয়েছে ভাল সম্পর্ক। অনেকবার ধারাবাহিকভাবে বাজে খেললেও বিসিবি তাকে খেলার সুযোগ করে দিয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় তিনি আজ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তার এই অবস্থায় আসার পিছনে দেশও তাকে যারপরনায় সহযোগিতা করেছে।

সেই সাকিব আল হাসানকে প্রায়শঃই দেখা যায় টিমের সাথে অনুশীলনে যান না। তিনি কোচের গাইডেন্সও অনেক সময় মানেন না। মাঝে মধ্যই বিশ্রামের নামে তিনি গুরুত্বপূর্ণ সিরিজে খেলেন না। সম্প্রতি বিশ্বকাপে খেলার পরে শ্রীলংকা সফরে তিনি নিজেকে গুঁটিয়ে রাখেন। বিশ্রামের নামে তিনি আমেরিকা পাড়ি দেন। ফলে সাকিবের স্থানে অধিনায়কত্ব করতে হয় তামিম ইকবালকে। এই সফরে সব ফরমেটেই বাংলাদেশ শ্রীলংকার কাছে সূচনীয়ভাবে হারে।

সাকিব আল হাসান টি-২০ ও টেস্ট অধিনায়ক। এই দুই ফরমেটে তিনিই দলের মূল কান্ডারী। কিন্তু সাকিব আল হাসান শুধু নিজের জন্যই ভাবেন, দল নিয়ে তার ভাবনা খুবই কম। তার পারফরমেন্সে কখনোই মনে হয়না তিনি দলের জন্য খেলেন। অলরাউন্ডার হওয়ার সুবাদে তিনি বিসিবিকে খুব একটা পাত্তা দেননা বলেই মনে হয়। তার বিরুদ্ধে বিসিবির বিস্তর অভিযোগও আছে।

আসন্ন ভারত সফরের আগে তিনি হঠাৎ করেই ক্রিকেটারদের দাবিদাওয়া নিয়ে আন্দোলন শুরু করেন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তিনি সকল ধরনের খেলা বন্ধ রাখার ঘোষনা দেন। এর আগে তিনি এই বিষয়ে বিসিবিকে কিছুই জানাননি। বিসিবির কাছে কোন দাবি দাওয়াও আগে পেস করেননি। হঠাৎ করেই তিনি সাংবাদিক সম্মেলন করে ষাট জন ক্রিকেটারকে নিয়ে আন্দোলন শুরু করেন। বিচলিত হয়ে পড়ে বিসিবি, আন্দোলনরত ক্রিকেটারদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও কারো ফোনেই কথা বলতে পারে নি। বিসিবির পক্ষ থেকে আপ্রান চেষ্টা চালিয়ে আন্দোলনকারী ক্রিকেটারদের সাথে আলোচনা করে তাদের প্রায় সকল দাবিই মেনে নেওয়া হয়। সাথে সাথে তা বাস্তবায়নে কাজও শুরু হয়।

বিসিবির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে ভারত সফরকে বাধাগ্রস্ত করার জন্যই সাকিব আল হাসান সুকৌশলে এই আন্দোলনের ডাক দিয়েছিলেন। সাকিব ভারত সফরে যেতে চাননা বলে বিসিবি সূত্রে জানা যায়। এরই মধ্য আরেকটি কান্ড করে বসেন সাকিব। বিসিবির নিয়ম-নীতি ভঙ্গ করে একটি মোবাইল কম্পানির সাথে চুক্তি করে বসেন। বিসিবি প্রধান এই বিষয়ে সাকিব আল হাসানকে কারন দর্শানোর নোটিস দিয়েছে। আবার গত দুইদিন সাকিব প্রস্তুতি ম্যাচও খেলতে যায়নি। ফলে ভারত সফরে সাকিবের ক্যাপ্টেন্সী নিয়ে সন্দেহ দেখা দিয়েছে। আবার এদিকে তামিম ইকবালও বিশ্রামে থাকার ঘোষনা দিয়েছেন। ফলে তামিমও যাচ্ছেন না ভারত সফরে। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেটের আকাশে এখন দুর্যোগের ঘনঘটা। আর পিছনে রয়েছে গভীর ষড়যন্ত্র।

আফগানিস্তানকে ২৬৩ রানের টার্গেট দিয়েছে বাংলাদেশ

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় আফগানিস্তান। জবাবে ৭ উইকেট হারিয়ে ৫০ ওভারে ২৬২ রান করে বাংলাদেশ। ফলে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২৬৩ রানের সহজ টার্গেট দেয় বাংলাদেশ। বাংলাদেশের পক্ষে একমাত্র মুশফিকুর রহিম ছাড়া কেউ আর বড় স্কোর করতে পারেন নি। মুশফিকুর রহিম ৪টি বাউন্ডারী ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৮৭ বলে ৮৩ রান করেন।

দলীয় ২৩ রানের মাথায় মুজিবুর রহমানের বলে ক্যাচ দিয়ে আউট হন ওপেনার লিটন দাস। এর পর দলীয় ৮২ রানের মাথায় মোহাম্মদ নবীর বলে আউট হন তামিম ইকবাল। আউট হবার আগে তিনি ৫৩ বলে ৩৬ রান করেন। বাংলাদেশের তৃতীয় উইকেটের পতন ঘটে দলীয় ১৪৩ রানে। এই সময় ৬৯ বলে ৫১ রান করে আউট হন সাকিব আল হাসান। দলীয় ১৫১ রানের মাথায় এলবিডাব্লিও হয়ে আউট হন সৌম্য সরকার। তার আগে তিনি ১০ বল খেলে ৩ রান করেন। তারপর মুশফিক ও মাহমুদুল্লাহ দলীয় স্কোর নিয়ে যান ২০৭ রানে। আর এর পরই ক্যাচ দিয়ে আউট হন মাহমুদুল্লাহ। তিনি ৩৮ বল মোকাবেলা করে ২৭ রান করেন। ২৫১ রানের মাথায় আউট হন মুশফিকুর রহিম। বাংলাদেশের ৭ম উইকেটের পতন ঘটে দলীয় ২৬২ রানে। এই সময় আউট হন মোসাদ্দেক হোসেন। তিনি ২৪ বলে ৩৫ রান করেন। ফলে আফগানিস্তানের বিপক্ষে জিতা বাংলাদেশের জন্য অনেক কঠিন হয়ে গেল।

৬৪ রানে দুই উইকেটের পতনে স্নায়ুচাপে ভারত

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকম

শুরুতেই বিপর্যয়ে ভারত। আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং নেয় তারা। দলীয় ৭ রানের মাথায় শক্তিশালী ও নির্ভরযোগ্য ওপেনার রোহিত শর্মা মুজিবুর রহমানের বলে আউট ‌হয়ে প্যাভেলিয়নে ফিরে যান । তিনি ১০ বল মোকাবেলা করে মাত্র ১ রান করেন। এর পর দলীয় ৬৪ রানের মাথায় মোঃ নবীর বলে ক্যাচ দিয়ে আউট হন কেএল রাহুল। ফিরে যাবার আগে তিনি ৫৩ বল খেলে ৩০ রান করেন।

চলতি বিশ্বকাপ ক্রিকেটে প্রথম অঘটনটি ঘটে গেছে ইংল্যান্ড-শ্রীলংকা ম্যাচে। টস জিতে শ্রীলংকা প্রথমে ব্যাট করে ২৩২ রান করে ৯ উইকেট খরচ করে। জবাবে ইংল্যান্ড ৩ ওভার বাকি থাকতেই সবকটি উইকেট হারিয়ে ২১২ করে অতিকষ্টে। ফলে শ্রীলংকা জয় পায় ২০ রানের। লেসিথ মালিঙ্গার ৪ উইকেট শিকারের ফলে শ্রীলংকার এই জয়লাভ সহজ হয়। এই সময় স্নায়ুচাপে পড়ে ইংল্যান্ড ব্যাট করছিল। আর এই স্নায়ুচাপের কারনেই ইংল্যান্ড পরাজিত হয়েছে বলে অনেকে মনে করেন। আর একই স্নায়ু চাপ কাজ করছে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মাঝে। তাই আজও কোন অঘটন ঘটে যেতে পারে বলে অনেকে মনে করছেন।

বাংলাদেশ একাদশে রুবেল হোসেন ও সাব্বির রহমান

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

টস জিতে অস্ট্রেলিয়া ব্যাট করছে। উইকেটের অবস্থা বেশ ভাল থাকায় অস্ট্রেলিয়া ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মাশরাফি জানিয়েছেন টস জিতলে তিনিও আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিতেন। বাংলাদেশ দলে সাইফুদ্দিন ও মোসাদ্দেকের পরিবর্তে স্থান পেয়েছেন পেসার রুবেল হোসেন ও সাব্বির রহমান। সাইফুদ্দিন ও মোসাদ্দেক ইঞ্জুরীর কারনে আজকের একাদশ থেকে ছিটকে পড়েছেন।

অপরদিকে অস্ট্রেলিয়ার একাদশে আবার ফিরে এসেছেন কাল্টার নাইল ও এডাম জাম্পা। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৪৪/০(৮ ওভার)

সেমিফাইনালে খেলার সম্ভাবনা বাংলাদেশের কতটুকু?

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে বিশাল জয়ে বিশ্বব্যপী বাংলাদেশ ক্রিকেট শিবিরে চাঙ্গা ভাব চলছে। টস জিতে ফিল্ডিয়ের সিদ্ধান্ত যে সঠিক ছিল তা প্রমান করেছেন মাশরাফি বাহিনী। টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করে ৮ উইকেট হারিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩২১ রান করে বাংলাদেশকে ৩২২ রানের জয়ের টার্গেট দেয়। এই টার্গেট অতিক্রম করে বাংলাদেশ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জিতবে কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ ছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট শিবিরে। তামিম ইকবাল ও মুশফিকের আউটের পরে ফিকে হয়ে আসছিল বাংলাদেশের জয়ের সম্ভাবনা। অবশেষে সকলের আশংস্কাকে উড়িয়ে দিয়ে টাইগাররা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৭ উইকেটের বিশাল জয় উপহার দেয়। আর তখনো ৫১ বল হাতে ছিল বাংলাদেশের।

সাকিবের ৯৯ বলে ১২৪ ও লিটন দাসের ৬৯ বলে ৯৪ রানের সুবাদে এই জয় ত্বরান্বিত হয়। আর এই জয়ের মধ্য দিয়ে বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান বিশ্ব ক্রিকেটে টাইগারদের জাত চিনিয়ে দেন। মাশরাফি বাহিনী কি তা বিশ্বকে জানিয়ে দিয়েছে টাইগাররা। তাই বিশ্ব ক্রিকেটে এখন বাংলাদেশকে নিয়ে চলছে ব্যপক আলোচনা। সকলেই টাইগারদের সেমিফাইনালে খেলার সম্ভাবনা দেখছে। বিশাল টার্গেট তাড়া করে বাংলাদেশ বিশাল জয় পেয়েছে। বাকি একান্ন বল খেলার সুযোগ থাকলে হয়ত কাল ৩৮০ রান করতে পারতো টাইগাররা। তাই ক্রিকেট বিশ্ব বিশ্ব ক্রিকেটের এই আসরে বাংলাদেশের সামর্থ সম্পর্কে জানতে পেরেছে। বাংলাদেশকে নিয়ে তারা এখন নতুন করে ভাবছে। বাংলাদেশ এখন পয়েন্ট টেবিলের পঞ্চম স্থানে অবস্থান করছে ৫ খেলায় ২টি জয়, ২টি হার আর একটি পরিত্যক্ত ম্যাচ দিয়ে। শ্রীলংকার সাথে খেলা পরিত্যক্ত না হলে হয়ত বাংলাদেশই জিততে পারতো।

লীগ পর্যায়ে বাংলাদেশের আরো ৪টি খেলা বাকি আছে। খেলাগুলি হবে অস্ট্রেলিয়া, আফগানিস্তান, ভারত ও পাকিস্তানের সাথে। এর মধ্য পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের জয়ের সম্ভাবনা টাইগারদের বর্তমান সামর্থ অনুযায়ী ৯৯%। অপরদিকে অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের মধ্য কমপক্ষে একটি দলকে হারাবে বাংলাদেশ। এমনকি বাংলাদেশের কাছে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া দুটি দলই হেরে যেতে পারে। এমন হিসাবে বাংলাদেশের সেমিফাইনালে খেলার সম্ভাবনা যথেষ্ট উজ্জ্বল। বাকিটা মাশরাফি বাহিনী তাদের খেলার সামর্থ দিয়ে বিশ্ববাসীকে প্রমান করে দেখাবে।

 

সামনের যে কটি ম্যাচে জিততে পারে বাংলাদেশ

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

জমে উঠেছে বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯ এর খেলা। ইতিমধ্য লীগ পর্যায়ের ১৩টি খেলা শেষ হয়েছে। প্রতিটি দল একে অন্যের মুখামুখি হবে লীগ পর্যায়ে। লীগ পর্যায়ে প্রতিটি দল ৯টি করে খেলা খেলবে। আর লীগ পর্যায়ের খেলা শেষে সর্বোচ্চ পয়েন্ট পাওয়া ৪টি দল সেমিফাইনালে খেলবে। বাংলাদেশ ইতিমধ্য ৩টি ম্যাচ খেলে ফেলেছে এবং ১টিতে জয় ও ২টিতে হে্রেছে টাইগাররা। তবে প্রথমদিকের এই ৩ ম্যাচেরই শক্ত প্রতিপক্ষ ছিল যথাক্রমে সাউথ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড। এর মাঝে সাউথ আফ্রিকার সাথে বাংলাদেশ জিতেছে। অপরদিকে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের সাথে বাংলাদেশ হেরেছে। তবে এখনি বাংলাদেশের সেমিফাইনালে খেলার সম্ভাবনা শেষ হয়ে গেছে বলা যাবে না। কারন বাংলাদেশের এখনো ৬টি ম্যাচ খেলা বাকি আছে।

১১ই জুন বাংলাদেশ চতুর্থ ম্যাচ খেলবে শ্রীলংকার বিপক্ষে। র‍্যাংকিংয়ে শ্রীলংকা বাংলাদেশের পিছনে আছে। এছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে শ্রীলংকার পারফরমেঞ্চ তেমন একটা ভালনা। যার ফলে বাংলাদেশ শ্রীলংকার বিরুদ্ধে ম্যাচ জিতবে আশা করা যায়। ১৭ই জুন বাংলাদেশ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে খেলবে। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশ ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইট ওয়াশ করেছে। অপরদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ র‍্যাংকিংয়েও বাংলাদেশের পিছনে আছে। ফলে আশা করা যায় এই ম্যাচটিতে বাংলাদেশ জিতবে।

২০শে জুন বাংলাদেশ খেলবে শক্ত প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। এই ম্যাচটি বেশ লড়াইপূর্ন হবে বলে মনে হচ্ছে। তবে এই ম্যাচটির জয় পরাজয় নিয়ে এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না। আর আগের ম্যাচগুলির খেলার ধরন দেখে তা হয়ত অনুমান করা যাবে। ২৪ জুন বাংলাদেশ খেলবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে। আফগানিস্তান র‍্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের পিছনে আছে ও তাদের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স খুব একটা ভাল না। ফলে এই ম্যাচটিতে বাংলাদেশ জয় লাভ করবে বলেই মনে হচ্ছে। ২রা জুলাই বাংলাদেশ মুখামুখি হবে শক্ত প্রতিপক্ষ ভারতের সাথে। এই ম্যাচটি বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ন হবে। ভারত ২০১৯ বিশ্বকাপে অন্যতম ফেভারিট দল। ফলে জয়ের পাল্লা তাদের পক্ষেই ভারি। লীগ পর্যায়ে বাংলাদেশ সর্বশেষ ম্যাচ খেলবে পাকিস্তানের বিপক্ষে। সেরাটি দিয়ে খেলতে পারলে বাংলাদেশ এই ম্যাচটি জিততে পারে। মোট ৫টি ম্যাচে জিততে পারলেই সেমিফাইনালে উঠার সম্ভাবনা রয়েছে টাইগারদের। তবে সে পর্যন্ত ম্যাচ বাই ম্যাচ অপেক্ষা করতে হবে।

যে কারনে টাইগাররা নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরে গেল

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকম

লড়াই করে নিউজিল্যান্ডের সাথে ২ উইকেটে হেরেছে টাইগাররা। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ সবকটি উইকেট হারিয়ে ২৪৪ রান করে। জবাবে নিউজিল্যান্ড ৮ উইকেটে ২৪৭ রান করে ১৭ বল বাকি থাকতেই ২ উইকেটে জয় পায়। এই জয়-পরাজয় নিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেট প্রেমীদের মধ্য চলছে নানা রকম আলোচনা-সমালোচনা।

স্বাভাবিকভাবেই বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা খেলাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিল। দ্রুত রান নিতে যেয়ে হঠাৎ মুশফিকুর রহিম রান আউট হলে দলে বিপর্যয় নেমে আসে। তবে অপর প্রান্ত থেকে সাকিব সারা না দিলে মুশফিককে উইকেটের মাঝ থেকে ফিরে আসতে যেয়ে রান আউট হতে হয়। ভালভাবেই চাপ সামাল দিয়ে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন মুশফিকুর রহিম ও বিশ্ব সেরা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। এই রান আউট নিয়ে ক্রিকেট প্রেমীদের মধ্য চলছে চুলছেড়া বিশ্লেষণ। এর পর সাকিবও ৬৮ বলে ৬৪ রান করে দলীয় ১৫১ রানের মাথায় উইকেট কিপারের কাছে সহজ ক্যাচ দিয়ে আউট হন। এর পর মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত দলকে এগিয়ে নিতে যথাযথ ভুমিকা রাখতে পারেননি। ৪১ বলে ১৯ রান করে আউট হন মাহমুদুল্লাহ আর ২২ বলে ১১ রানে আউট হন সৈকত। আর এই সময়টাতেই আরো অধিক রান হতে পারত। এর পরে মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনের ২৩ বলে ২৯ রানের সুবাদে টাইগাররা সব উইকেট হারিয়ে ২৪৪ রান করে। নিউজিল্যান্ডকে দেওয়া ২৪৫ রানের টার্গেটটা যদি ২৬০ হত তাহলে ফলাফল অন্য রকম হতে পারতো।

অপরদিকে বাংলাদেশী বোলাররা নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের ওপর ক্রমাগত চাপ সৃষ্টি করে চলেছিল। সুযোগ পেয়েও  উইলিয়ামসনকে রান আউটটা করতে পারলো না মুশফিকুর রহিম। আর এর মধ্যদিয়ে মুলত টাইগারদের পরাজয়ের ভিত রচনা হয়। এই আউটটা করতে পারলে ম্যাচের ফলাফল অন্য রকম হতে পারতো। এছাড়াও আরো দুটি রান আউটের সুযোগও অল্পের জন্য নষ্ট হয়। সব মিলিয়ে টস থেকে নিয়ে সব কিছুই টাইগারদের বিপক্ষে ছিল। তথাপি বাংলাদেশ লড়াই করে হেরেছে অন্যতম ফেভারিট দল নিউজিল্যান্ডের কাছে। সেই সাথে টাইগাররা বিশ্ব ক্রিকেটে নিজেদের জাত চিনিয়ে দিয়েছে। আর এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে আর কেউ সহজ প্রতিপক্ষ হিসাবে আত্নতুষ্টিতে থাকবে না।

সাউথ আফ্রিকা ২১ রানে হারিয়ে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বাংলাদেশের শুভ সূচনা

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯ এ সাউথ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ঐতিহাসিক জয় দিয়ে টাইগারদের শুভ সূচনা। সাউথ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ২১ রানের জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। টস জিতে সাউথ আফ্রিকা বাংলাদেশকে প্রথমে ব্যাটিংয়ে পাঠায়। তামিম আর সৌম্য মিলে বাংলাদেশের ভিত রচনা করেন। দলীয় ৬০ রানে ব্যক্তিগত ১৬ রান করে আউট হন তামিম ইকবাল। এর পর দলীয় ৭৫ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৩০ বলে ৪২ রান করে আউট হন সৌম্য সরকার। এরপর সাকিব আল হাসান আর মুশফিকুর রহিম মিলে বিশাল পার্টনারশীপে দলীয় রান দাঁড়ায় ৩ উইকেটে ২১৭। ৮৪ বল খেলে ৭৫ রান করে ইমরান তাহিরের বলে বোল্ড হয়ে আউট হন সাকিব আল হাসান। দলীয় ২৪২ রানের মাথায় ২১বলে ২১ রান করে আউট হন মোঃ মিঠুন। ৮০ বলে ৭৮ রান করে দলীয় ২৫০ রানের মাথায় আউট হন মুশফিকুর রহিম। এরপর মাহমুদুল্লাহ ও মোসাদ্দেকের দৃঢ়তায় দলীয় রান দাঁড়ায় ৩১৬। আর এই সময়ে ২০ বলে ২৬ রান করে আউট হন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। মেহেদী হাসান মিরাজকে নিয়ে ৫০ ওভারে দলীয় ৩৩০ রানের স্কোর করেন মাহমুদুল্লাহ। মাহমুদুল্লাহ ৩৩ বলে ৪৬ আর মিরাজ ৩ বলে ৫ রান করে অপরাজিত থাকেন।

জবাবে বেটিংয়ে  নেমে সাউথ আফ্রিকা ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩০৯ রান করে। সাউথ আফ্রিকার পক্ষে দুপ্লেসিস ৬২, মারকাম ৪৫ ও দুমিনি ৪৫ রান করেন। মুস্তাফিজ ১০ ওভার বল করে ৬৭ রান দিয়ে ৩টি উইকেট লাভ করেন। অপরদিকে মোঃ সাইফুদ্দিন ৮ ওভার বল করে ৫৭ রান দিয়ে ২টি উইকেট লাভ করেন। সাউথ আফ্রিকার পক্ষে পেলোকিয়া, মরিচ ও ইমরান তাহির ২টি করে উইকেট লাভ করেন। আজকের খেলায় প্লেয়ার অফ দ্য ম্যচ হন সাকিব আল হাসান।

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে টাইগাররা

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকমঃ

বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯ এ আজকের খেলায় টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সাউথ আফ্রিকা। ফলে বাংলাদেশকে প্রথমে ব্যাটিং করতে হচ্ছে। খেলা শুরু হতে আর মাত্র কয়েক মিনিট বাকি। ইঞ্জুরী কাটিয়ে দলে স্থান পেয়েছেন তামিম ইকবাল ও সাইফুদ্দিন। বাংলাদেশ একাদশে আছেন-তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোঃ সাইফুদ্দিন,  মুস্তাফিজুর রহমান ও মাশরাফি বিন মুর্তুজা।

ফাইনালে শ্বাসরুদ্ধকর জয় দিয়ে আয়ারল্যান্ড ট্রাই-ন্যাশন্স সিরিজ শেষ করলো টাইগাররা

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকম

বাংলাদেশ শিবিরে শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থা, কি হবে খেলার ফলাফল। উইন্ডিজদের দারুন সূচনায় ২০.১ ওভারেই কোন উইকেট খরচ না করেই ১৩১ রান সংগ্রহ। কোন অবস্থাতেই উইকেটের পতন ঘটাতে পারছিল না বাংলাদেশ। এমন সময় বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় উভয় শিবিরে চলে নানা জল্পনা কল্পনা। লীগ পর্বে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ পয়েন্ট থাকায় বৃষ্টির কারনে খেলা পরিত্যক্ত হলে বাংলাদেশ ট্রাই-ন্যাশন্স সিরিজে চ্যম্পিয়ন হত। দীর্ঘ সময় পরেও পরিবেশ অনুকুলে না থাকায় খেলার ফলাফল নিয়ে সিদ্ধান্তে আসা যাচ্ছিল না। এক পর্যায়ে প্রায় সাড়ে ৪ ঘন্টা পরে খেলা শুরু করার ঘোষনা আসলো আয়োজকদের কাছ থেকে। ডি এল ম্যাথডে খেলা হবে ২৪ ওভার।

বৃষ্টির পর পুনরায় খেলা শুরু হলে ২৪ ওভার খেলে ১ উইকেট হারিয়ে উইন্ডিজরা ১৫২ রান করে। আর তাতে বাংলাদেশের টার্গেট ঠিক করা হয় ২৪ ওভারে ২১০ রান যা অনেকটা অসম্ভব ব্যপার হয়ে দাঁড়ায় বাংলাদেশের জন্য। বাংলাদেশ কি পারবে মাত্র ২৪ ওভারে ২১০ রান করতে? টাইগাররা ব্যাটিংয়ে নামে আত্নবিশ্বাস নিয়ে। এক পর্যায়ে সৌম্য সরকারের দৃঢ়তায় দলীয়  রান দাঁড়ায় ৫৯। আর তখনই ১৩ বলে ১৮ রান করে তামিম ইকবাল আউট হন। ক্রিসে আসেন সাব্বির রহমান, ২ বল খেলে শূন্য রানে দলীয় ৬০ রানের মাথায় আউট হন সাব্বির। হতাশা নেমে আসে বাংলাদেশ শিবিরে, বাংলাদেশ কি জিততে পারবে? ৪১ বলে ৬৬ ও দলীয় ১০৯ রানের মাথায় আউট হন সৌম্য সরকার। বাংলাদেশ শিবিরে তখন হতাশার মাত্রা আরো বৃদ্ধি পেল। ক্রিসে আসেন মুশফিক। ২২ বলে ৩৬ রান করে এলবিডাব্লিও হয়ে আউট হন তিনি। দলীয় রান তখন ১৩৪/৪। আর দলীয় ১৪৩ রানের মাথায় আউট হন মোহাম্মদ মিথুন। এই পর্যায়ে হাল ধরেন মাহমুদুল্লাহ ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। সৈকতের অতি দানবীয় ব্যাটিংয়ে অবশেষে বাংলাদেশ কাংঙ্খিত জয় পায়। সৈকত ২৪ বলে ৫২ রান করে ও মাহমুদুল্লাহ ২১ বলে ১৯ রান করে অপরাজিত থাকেন। বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২১৩ আর সেই সাথে অসম্ভবকে সম্ভব করলো টাইগাররা। সারা দেশে আনন্দের বন্যায় ভেসে যায়। প্রধানমন্ত্রীসহ রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ ব্যক্তিরা অভিনন্দন জানায় বাংলাদেশ দলকে। সাবাস বাংলাদেশ, সাবাস টাইগার দল। সাবাস মাশরাফি বিন মর্তুজা। আর এই সিরিজ জয়ের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ দলে আত্নবিশ্বাস বেড়ে গেল। বিশ্বকাপে এক ধাপ এগিয়ে রইলো বাংলাদেশ।

1 2 3 8