নারায়নগঞ্জে শীতলক্ষা নদীতে লঞ্চ ডুবিতে ২৭ জনের মরদেহ উদ্ধার

নারায়নগঞ্জের মদনগঞ্জে শীতলক্ষা নদীর ওপরে নির্মাণাধীন সেতুর কাছে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি কার্গো জাহাজের ধাক্কায় রবিবার সন্ধ্যায় সাবিত আল হাসান নামের এই লঞ্চটি ডুবে যায়। এই সময় লঞ্চটিতে অর্ধশতাধিক যাত্রী ছিল বলে লঞ্চটির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। দুর্ঘটনার পর উদ্ধারকারীরা রবিবার রাতে ৫ জনের মরদেহ উদ্ধার করে। আজ লঞ্চটিকে নদীর তল দেশ থেকে টেনে উঠানো হয়। উদ্ধারকারী দল এই সময় আরও ২১টি লাশ উদ্ধার করে। আরও ১ জনের লাশ নারায়নগঞ্জের নদী পাড় থেকে উদ্ধার করা হয়। এই নিয়ে মোট ২৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সেই সাথে লঞ্চটির উদ্ধার কাজ সমাপ্ত ঘোষনা করেছে বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান।

দুর্ঘটনার পর প্রায় ৪০ জনের মত যাত্রী সাতার কেটে তীরে উঠতে সক্ষম হয় । জাহাজটি নারায়নগঞ্জ থেকে মুন্সীগঞ্জে যাচ্ছিল। এই সময় একটি বড় আকারের কার্গো জাহাজ দ্রুত গতিতে লঞ্চটিতে সজোড়ে ধাক্কা দিলে সেটি ডুবে কার্গো জাহাজের নীচে চলে যায়। কার্গো জাহাজটি রাতের অন্ধকারে চলে যায়। এটি আর এখন খোঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। হতাহতদের সজনরা খবর জানার জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করেছেন নদীপাড়ে। নিহত প্রত্যেককে ২৫ হাজার টাকা প্রদানের ঘোষনা দিয়েছে নারায়নগঞ্জ জেলা প্রশাসক।