প্রস্তাবিত বাজেটে রেমিটেন্সের ওপর ২% প্রণোদনা দিবে সরকার

বিডি খবর ৩৬৫ ডটকম

২০১৯-২০ অর্থ বছরের বাজেট মহান জাতীয় সংসদে উত্থাপন করা হয়েছে। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল বৃহস্পতিবার বিকালে জাতীয় সংসদে এই বাজেট পেশ করেন। বাজেটের সূচনা বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী বেশ অসংলগ্ন কথা বার্তা বলছিলেন। বার বার তিনি ভুল করতে ছিলেন। এই সময় তাকে বেশ অসুস্থ্য মনে হয়েছিল। সংসদে বাজেট উত্থাপনের পর তিনি অসুস্থ্যতার কারনে তার বাজেট পেশ করতে পারছিলেন না। পরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অসমাপ্ত বাজেট বেশ করেন। অসুস্থ্য হয়ে অর্থমন্ত্রী মঙ্গলবার রাজধানীর অ্যাপেলো হসপিটালে গেলে সেখানে চিকিৎসকরা তাকে হসপিটালে ভর্তি করেন ও রোগ নির্ণয়ে নানা পরীক্ষা করেন।

সংগৃহীত

২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব করা হয়েছে।  এটি দেশের ৪৮তম বাজেট, আওয়ামীলীগ সরকারের ২০তম ও অর্থমন্ত্রী হিসেবে মোস্তফা কামালের প্রথম বাজেট। এই বাজেট পাস হলে আগামী ১ জুলাই থেকে প্রবাসীরা ১০০ টাকা দেশে পাঠালে ২ টাকা প্রণাদনা পাবেন এবং এর জন্য নতুন বাজেটে ৩ হাজার ৬০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখার প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী। বর্তমানে প্রায় ১ কোটি বাংলাদেশী প্রবাসে থাকেন এবং তাদের পাঠানো রেমিটেন্স জিডিপিতে ১২% অবদান রাখে। বাজেটে আগামী অর্থ বছরে সম্ভাব্য জিডিপি ধরা হয়েছে ৮.২%। প্রস্তাবিত বাজেট বাস্তবায়ন হলে মোবাইলের খরচ বাড়বে। স্মার্ট ফোনের দামও বাড়বে এই বাজেট বাস্তবায়ন হলে। তৈরী পোষাক খাতের প্রনোদনার জন্য বাজেটে ২৮২৫ কোটি টাকা রাখা হয়েছে। তবে অর্থমন্ত্রী বলেছেন এই বাজেট বাস্তবায়ন হলে কোন পন্যর দামই বাড়বে না। মোট বাজেটের ৬০% ব্যয় হবে বেতন-ভাতা ও ভর্তুকিতে। আর বাকি ৪০% উন্নয়ন ব্যয় হবে। সংসদের স্পীকার ডঃ শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এই বাজেট উত্থাপিত হয়। এই বাজেট নিয়ে এখন পর্যন্ত সংসদের বিরোধী দল ও বিএনপিসহ অন্যান্য দলগুলোর কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *