গুজব রটনাকারী অভিনেত্রী নোওশাবাকে আবার দুই দিনের রিমান্ডে নিয়েছে

নিউজ ডেস্কঃ বিডি খবর ৩৬৫ ডটকম

নিরাপদ সড়কের আন্দোলনের সময় গুজব রটনার দায়ে অভিনেত্রী নোওশাবাকে আবার দুই দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। চার দিনের রিমান্ড শেষে আজ আদালতে উপস্থিত করে ১০ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। গত ৪ঠা অগাস্ট শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে ছাত্রদল ও ছাত্র শিবিরের ক্যাডাররা সাধারন ছাত্রদের সাথে মিশে নানা রকম গুজব রটায়।

এ সময় চক্রান্তকারীদের গুজবে কান দিয়ে রাজধানীর সায়েন্সল্যাব মোড়ে অবস্থানরত শিক্ষার্থীরা বিভ্রান্ত হয়ে ধানমন্ডি ৩ নং সড়কে অবস্থিত আওয়ামীলীগ অফিসে আচমকা হামলা চালিয়ে অফিস ভবনের ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। এই সময় আওয়ামীলীগ অফিসের অবস্থারত লোকজন আক্রমনকারী শিক্ষার্থীদের দাওয়া দিয়ে সরিয়ে দেয়। তারপর পুলিশ ঝিগাতলা মোড়ে অবস্থান নিয়ে পরিস্থিত সামাল দেওয়ার চেষ্ঠা করে।

ছাত্রবেশী ছাত্রদল ও শিবিরের কর্মীরা আবার সংগঠিত হয়ে আওয়ামীলীগ অফিসের দিকে হামলা করতে  গেলে পোষাকধারী ও সাদা পোষাকধারী পুলিশ লাঠি চার্জ ও টিয়ার গ্যাস মেরে তথাকথিত আন্দোলনকারীদের ঝিকাতলা মোড় থেকে সরিয়ে দেয়। তারপর থেকে ছাত্র  নামধারী কিছু ছেলে স্কুল ড্রেস পড়ে সায়েন্সল্যাব এলাকায় নানা রকম গুজব রটিয়ে জনতাকে উত্তেজিত করতে থাকে।

এই সময় অনেকে ফেস বুক লাইভে এসে গুজব ছড়াতে থাকে যে, আওয়ামীলীগ অফিসে নিয়ে কয়েকজন মেয়েকে রেপ করা হয়েছে, দুই জনের চোখ তুলে ফেলেছে ছাত্রলীগের কর্মীরা, বেশ কয়েক জনকে আটকে রাখা হয়েছে ইত্যাদি নানা রকম গুজব। আর এই সময়ে অভিনেত্রী নোওশাবা ফেসবুক লাইভে এসে বলতে থাকেন- দুইজন ছাত্রকে মেরে ফেলা হয়েছে, চার জনকে রেপ করা হয়েছে, আমাদের ছোট ভাইদেরকে আওয়ামীলীগ অফিসে আটকে রাখা হয়েছে ইত্যাদি নানা রকম গুজব। সাংবাদিকরা এই গুজবের ব্যপারে নোওশাবাকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি তার সত্যতা প্রমান করতে ব্যর্থ হন।

এরপর ওই রাতেই র‍্যাব-১ এর একটি দল নোওশাবাকে উত্তরা থেকে গ্রেপ্তার করে। নোওশাবা গুজব ছড়ানোর জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেন। পরদিন আদালতে উপস্থিত করে রিমান্ড চাইলে আদালত ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। চারদিনের রিমান্ড শেষে আজ আবার আদালতে উপস্থিত করে ১০ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.