নরসিংদী জেলার রায়পুরা থানার বাঁশগাড়ী ইউনিয়নে ২ গ্রপের সংঘর্ষে নিহত ২

নিউজ ডেস্কঃবিডি খবর ৩৬৫ ডটকম

নরসিংদী জেলার রায়পুরা থানার চরাঞ্চলের বাঁশগাড়ী ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ২ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। পাশাপাশি উভয় গ্রুপের আরো কম বেশী ২৫/৩০ জনের মত আহতও হয়েছে। বহু বাড়ী ঘর ভাংচুর ও আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। প্রতিপক্ষের গুলিতে নিহতরা হলেন সারফিন(১৮) ও মাসুদ(২৯)। আহতরা নরসিংদী সদর হাসপাতালসহ অন্যান্য স্থানে চিকিৎসা নিচ্ছে। সংঘর্ষে আগ্নেয়াস্ত্র ও টেটা, বল্লমসহ অন্যান্য দেশীয় অস্ত্র ব্যবহার করা হয়।

ফাইল ফটো

অবস্থা এমনই ভয়ংকর হয়ে উঠেছিলে যে, প্রানহানির ভয়ে সেখানে পুলিশ পর্যন্ত যেতে পারে নাই। অবস্থা বেগতিক দেখে রায়পুরা উপজেলা প্রশাসন বিবদমান এলাকায় ১৪৪ দ্বারা জারি করে। বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যায়, বাঁশগাড়ী ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের সভাপতি হাফিজুর রহমান শাহেদ ও একই এলাকার সিরাজুল ইসলামের মধ্য দীর্ঘদিন যাবৎ এলাকায় আধিপত্ত বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলছিল। গত উপজেলা নির্বাচনে হাফিজুর রহমান শাহেদ উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের পক্ষে কাজ করে নাই। আর তখন থেকেই শাহেদ ও সিরাজুল ইসলাম গ্রুপের মধ্য বিরোধ আরো বাড়তে থাকে।

এর আগে এই দুই গ্রুপের মধ্য বেশ কয়েকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এক পর্যায়ে শাহেদ গ্রুপ এলাকায় টিকতে না পেরে এলাকা ছাড়া হয়। শাহেদ গ্রুপ বেশ কয়েকবার এলাকায় ঢোকার চেষ্টা করলে সিরাজ গ্রুপের বাধার মুখে আসতে পারেনি। ফলে শাহেদ গ্রুপের লোকজন নরসিংদী সদরসহ বিভিন্ন এলাকায় আশ্র্য় নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করতে থাকে। গতকাল এই গ্রুপের লোকজন আশেপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে লাঠিয়াল বাহিনী ভাড়া করে বাঁশগাড়ীতে ঢোকার চেষ্টা করলে সিরাজ গ্রুপের লোকেরা বাধা দেয়। ফলে উভয় গ্রুপের মধ্য রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ শুরে হলে গোলাগুলিতে ২ জন নিহত ও বহু লোক আহত হয়। উভয় পক্ষ থেকে গুলি ও ককটেল ছুড়া হয়। গুলি ও টেটার আঘাতে বহু হতাহত হয়। নরসিংদী থেকে শতাধিক পুলিশ ঘটনাস্থলে যেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা করে।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *